kalerkantho

বুধবার । ৩০ নভেম্বর ২০২২ । ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আরএসএসকেও নিষিদ্ধের দাবি

ভারতে নিষিদ্ধ ইসলামী দল পিএফআই

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সন্ত্রাসবাদে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে গত সোমবার রাতে ভারতের ইসলামী রাজনৈতিক দল পপুলার ফ্রন্ট অব ইন্ডিয়াকে (পিএফআই) পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে কেন্দ্র সরকার। এ ছাড়া পিএফআইকে নিষিদ্ধ জঙ্গিগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এর আগে সারা ভারতে সপ্তাহব্যাপী দুই দফা অভিযানে সংগঠনের ২৪০ জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পিএফআইয়ের পাশাপাশি এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আরো আটটি গোষ্ঠীকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সেগুলো হলো রিহ্যাব ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশন (আরআইএফ), ক্যাম্পাস ফ্রন্ট অব ইন্ডিয়া (সিএফ), অল ইন্ডিয়া ইমামস কাউন্সিল (এআইআইসি), ন্যাশনাল কনফেডারেশন অব হিউম্যান রাইটস অর্গানাইজেশন (এনসিএইচআরও), ন্যাশনাল ওমেনস ফ্রন্ট, জুনিয়র ফ্রন্ট, এমপাওয়ার ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশন এবং কেরালার রিহ্যাব ফাউন্ডেশন।

সরকার বলছে, পিএফআই ও এর সঙ্গে জড়িত গোষ্ঠীগুলোকে বেআইনি ঘোষণা করা হয়েছে। বেশ কয়েকটি অপরাধ ও সন্ত্রাস সংশ্লিষ্ট মামলায় পিএফআইয়ের সংশ্লিষ্টতা আছে। এ ছাড়া স্টুডেন্টস ইসলামিক মুভমেন্ট অব ইন্ডিয়া (এসআইএমআই), জামা’আতুল-মুজাহিদীন বাংলাদেশ (জেএমবি) এবং ইসলামিক স্টেটের (আইএস) সঙ্গে যোগসূত্র রয়েছে দলটির।

পিএফআইয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ, অপরাধ সংঘটনের ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে হুন্ডি ও অনুদানের মাধ্যমে দেশ-বিদেশ থেকে তহবিল সংগ্রহ করত দলটি।

ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, দেশের বাইরে থেকে তহবিল ও আদর্শগত সমর্থন পেয়ে পিএফআই দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার জন্য একটি প্রধান হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। কেরালা রাজ্যে একজন কলেজ শিক্ষকের হাত কেটে ফেলা এবং ভিন্নমতাবলম্বীদের হত্যার মতো সহিংস কাজে জড়িত পিএফআই।

মন্ত্রণালয় আরো বলছে, জনমনে আতঙ্ক তৈরি করতে নৃশংস হত্যা ও বেশ কয়েকটি অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড করেছে পিএফআই। তাদের বেআইনি কর্মকাণ্ড ভারতের অখণ্ডতা, সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তার জন্য ক্ষতিকর। তারা জনশান্তি ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। সমাজের একটি বিশেষ অংশকে মৌলবাদে রূপান্তরের গোপন এজেন্ডা রয়েছে তাদের।

এদিকে পিএফআইকে নিষিদ্ধের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে কেরালা কংগ্রেস ও এর জোটশরিক ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগ (আইইউএমএল)। একই সঙ্গে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘকেও (আরএসএস) নিষিদ্ধের দাবি জানিয়েছে দলটি।

জ্যেষ্ঠ কংগ্রেস নেতা ও রাজ্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক মন্ত্রী রমেশ চেন্নিথালা বলেন, পিএফআইকে নিষিদ্ধ করে ভালো সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র সরকার। একইভাবে আরএসএসকেও নিষিদ্ধ করা উচিত। সূত্র : এনডিটিভি



সাতদিনের সেরা