kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০২২ । ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আফগানিস্তান নিয়ে জাতিসংঘ

মেয়েদের শিক্ষায়তন বন্ধ রাখা বেদনাদায়ক

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আফগানিস্তানে এক বছর আগে মেয়েদের প্রাথমিক-পরবর্তী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধের ঘটনাকে ‘বেদনাদায়ক ও লজ্জাজনক’ আখ্যা দিয়েছে জাতিসংঘ। সেই সঙ্গে মেয়েদের উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলো খুলে দিতে তালেবানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব সংস্থার আফগানিস্তানবিষয়ক মিশন (ইউএনএএমএ)। জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসও নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

কট্টর শরিয়াপন্থী বাহিনী তালেবান গত বছরের ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের পশ্চিমা সমর্থিত সরকারকে উত্খাত করে দেশের নিয়ন্ত্রণ নেয়।

বিজ্ঞাপন

দেশে কিছুটা স্থিতিশীলতা আসার পর তালেবান কর্তৃপক্ষ গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর ছেলেদের মাধ্যমিক বিদ্যালয় খুলে দেয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে মেয়েদের মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলো। গতকাল রবিবার আফগানিস্তানে নারীশিক্ষা আনুষ্ঠানিকভাবে বন্ধের এক বছর পূর্তি হয়েছে।   

এর মধ্যে এ বছর গত ২৩ মার্চ নারীদের প্রাথমিকের পরের পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষণা দিয়েও কয়েক ঘণ্টা পরই তা প্রত্যাহার করে নেয় তালেবান কর্তৃপক্ষ।

আফগানিস্তানে নারীশিক্ষা আনুষ্ঠানিকভাবে বন্ধের এক বছর পূর্তির প্রেক্ষাপটে ইউএনএএমএ জানায়, তালেবানের এই পদক্ষেপের কারণে দেশজুড়ে লাখ লাখ মেয়ে শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এ মিশনের প্রধান মার্কাস পটজেল বলেন, ‘এটি নিতান্ত বেদনাদায়ক, লজ্জাজনক ও পরিহারযোগ্য একটি ঘটনার এক বর্ষপূর্তি। ’

আধুনিক বিশ্বের কোথাও এ রকম অদ্ভূত বিধান নেই মন্তব্য করে জাতিসংঘ কর্মকর্তা মার্কাস পটজেল আরো বলেন, ‘এই পদক্ষেপ দেশটির নারী প্রজন্মকে মারাত্মকভাবে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। একই অবস্থা ঘটছে আফগানিস্তানের ভবিষ্যতের ক্ষেত্রেও। ’ 

জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস টুইটারে বলেছেন, ‘এক বছরের বিদ্যার্জন ও সুযোগ হারিয়ে গেল, যা তারা আর কখনোই ফিরে পাবে না। ’

তালেবান কর্তৃপক্ষ নারীদের মাধ্যমিক ও পরবর্তী পর্যায়ের শিক্ষার বিষয়ে নতুন করে স্পষ্ট আর কিছু জানায়নি। এ মাসের শুরুতে তালেবানের শিক্ষামন্ত্রী দাবি করেন, এটি সেখানকার সাংস্কৃতিক ইস্যু। তিনি বলেন, প্রত্যন্ত এলাকার অনেক মানুষ চায় না তাদের মেয়েরা লেখাপড়া করুক। সূত্র : এএফপি

 

 

 



সাতদিনের সেরা