kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ অক্টোবর ২০২২ । ২১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

নতুন পরমাণু বিপর্যয়ের শঙ্কা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নতুন পরমাণু বিপর্যয়ের শঙ্কা

রাশিয়া নিয়ন্ত্রিত ইউক্রেনের জাপোরিঝিয়া বিদ্যুৎকেন্দ্রের আশপাশের অঞ্চলে অব্যাহত গোলাবর্ষণের ঘটনায় নতুন পারমাণবিক বিপর্যয়ের শঙ্কা দেখছেন বিশ্লেষকরা।

ইউরোপের সবচেয়ে বড় পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র জাপোরিঝিয়া। গত ৪ মার্চ মধ্য ইউক্রেনের এই বিদ্যুৎকেন্দ্র দখলে নেয় রাশিয়া। ওই অঞ্চলে সম্প্রতি যুদ্ধ জোরদার হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে রাশিয়ার গোলাবর্ষণে জাপোরিঝিয়ার আশপাশের অঞ্চলে ১৩ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছেন ইউক্রেনের দিনিপ্রোপেত্রোভস্ক অঞ্চলের গভর্নর ভ্যালেন্তিন রেজনিচেঙ্কো।

পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাছে হামলা হওয়াকে ধ্বংসাত্মক বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্বনেতারা। ১৯৮৬ সালে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নভুক্ত ইউক্রেনের চেরনোবিলের পারমাণবিক বিপর্যয়ের কথাও তুলে ধরছেন কেউ কেউ। ওই ঘটনায় শত শত লোক মারা যায় এবং ইউরোপের বেশির ভাগ অংশে তেজস্ক্রিয় দূষণ ছড়িয়ে পড়েছিল। তাই জাপোরিঝিয়ার সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ দ্রুত ইউক্রেনের কাছে হস্তান্তর করারও আহবান জানান তাঁরা।

জি-৭ ভুক্ত দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা বলেছেন, রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর পদক্ষেপগুলো জাপোরিঝিয়ায় পারমাণবিক দুর্ঘটনার ঝুঁকি উল্লেখযোগ্যভাবে বাড়াচ্ছে। এটি ইউক্রেনের জনগণ, প্রতিবেশী রাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বিপন্ন করছে।  

সামাজিক মাধ্যম টেলিগ্রামে ভ্যালেন্তিন রেজনিচেঙ্কো স্থানীয় লোকজনকে বিমানের শব্দ শুনলে নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার অনুরোধ করেছেন। ওই অঞ্চলে মোট ৮০টি রকেট ছোড়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ইউক্রেন বলছে, রাশিয়া জাপোরিঝিয়ায় শত শত সেনা মোতায়েন করেছে এবং গোলাবারুদ মজুদ করেছে।

ইউক্রেনীয় কর্মকর্তারা বলছেন, রাশিয়া জাপোরিঝিয়া থেকে আক্রমণ চালাচ্ছে এটা জেনে যে ইউক্রেনীয় বাহিনী পারমাণবিক দুর্ঘটনার ঝুঁকির কারণে জোরেশোরে প্রতিশোধ নিতে পারবে না। এ ছাড়া জাপোরিঝিয়াকে রাশিয়া অধিকৃত ক্রিমিয়ার সঙ্গে যুক্ত করারও পরিকল্পনা করা হচ্ছে জানিয়ে সতর্ক করেছে ইউক্রেনের পারমাণবিক সংস্থা এনারগোয়াতম।

নিরাপত্তা পরিষদে বৈঠকের আহবান

এদিকে জাপোরিঝিয়ার অবস্থা নিয়ে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে জরুরি বৈঠকের আহবান জানিয়েছেন রাশিয়ার প্রতিনিধি মিখাইল উলয়ানাভ। এ বৈঠক আজ বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিত হবে।

রুশ যুদ্ধবিমান ধ্বংসের দাবি ইউক্রেনের

ক্রিমিয়ার রুশ বিমান ও নৌঘাঁটিতে মঙ্গলবারের বিস্ফোরণ নিয়ে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য দেওয়া চলছে। গতকাল বিকেল পর্যন্ত কোনো আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেওয়া না হলেও ইউক্রেন বিমানবাহিনী ফেসবুকে লিখেছে, সাকি বিমানঘাঁটির ৯টি রুশ যুদ্ধবিমান ধ্বংস করা হয়েছে। তবে এই দাবি উড়িয়ে দিয়েছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মস্কো জানিয়েছে, ইউক্রেনের আক্রমণ নয়, ঘাঁটিতে থাকা অস্ত্র-গোলাবারুদ বিস্ফোরিত হয়ে আগুনের সূত্রপাত হয়।

ক্রেতা নেই প্রথম শস্যবাহী জাহাজের

রাশিয়া-ইউক্রেনের চুক্তির পর কিয়েভ ছেড়ে যাওয়া প্রথম শস্যবাহী জাহাজের নতুন ক্রেতা খোঁজা হচ্ছে। পাঁচ মাস বিলম্বে মালপত্র সরবরাহের অভিযোগে শস্যের মূল ক্রেতা লেবানন তাদের অর্ডার বাতিল করেছে। ২৬ হাজার টন ভুট্টা বহন করা ‘রাজোনি’ নামের জাহাজটির এই সপ্তাহেই ত্রিপোলি বন্দরে পৌঁছানোর কথা ছিল। কিন্তু এখন জাহাজটি চুক্তির মধ্যস্থতাকারী তুরস্কে ফেরানো হচ্ছে।

জেলেনস্কির আহবান

রুশ পর্যটকদের নিষিদ্ধ করতে পশ্চিমা দেশগুলোর প্রতি আহবান জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি। এক সাক্ষাৎকারে জেলেনস্কি বলেছেন, রুশ পর্যটকদের পশ্চিমা দেশগুলোতে নিষিদ্ধ করলে রাশিয়া আরো বেকায়দায় পড়বে। এ আহ্বানে সমর্থন জানিয়েছে এস্তোনিয়া ও ফিনল্যান্ড। জেলেনস্কির এ আহ্বানে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে রাশিয়া। সূত্র : এএফপি, বিবিসি ও নিউজ ওয়ার্ল্ড



সাতদিনের সেরা