kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ আগস্ট ২০২২ । ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১২ মহররম ১৪৪৪

মহারাষ্ট্রের রাজনীতিতে নাটক বিদ্রোহী শিণ্ডেই মুখ্যমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মহারাষ্ট্রের রাজনীতিতে নাটকীয় মোড় নিয়ে নতুন মুখ্যমন্ত্রীর মুখটাই বদলে গেল। উদ্ধব ঠাকরের পদত্যাগের পর বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবীসেরই পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হওয়া নিশ্চিত মনে করা হচ্ছিল। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে দেবেন্দ্র ফড়নবীস ঘোষণা করলেন, তিনি নন, শিবসেনার বিদ্রোহী নেতা একনাথ শিণ্ডেই হতে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী।

একনাথের সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ফড়নবীস বলেন, ‘আমরা (বিজেপি) মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারের জন্য কাজ করি না।

বিজ্ঞাপন

এটা মতাদর্শের লড়াই। একনাথ শিণ্ডে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন। আমি সরকারে থাকছি না। ’

ফড়নবীস আরো বলেছেন, ‘মহাবিকাশ আঘাডী সরকার রোজ হিন্দুত্বকে অপমান করেছে। শেষ দিন ওরা আওরঙ্গাবাদের নাম বদলের কথা বলেছে। কিন্তু যখন আপনার কাছে রাজ্যপালের চিঠি থাকে, তখন মন্ত্রিসভার বৈঠক করা ঠিক নয়। ’

নিজের সঙ্গী বিদ্রোহী বিধায়কদের নিয়ে গোয়া থেকে মুম্বাই আসার পর ফড়নবীসের সঙ্গে দেখা করতে যান শিণ্ডে। তারপর সরকার গঠনের দাবি জানাতে রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপাল ভগৎ সিংহ কোশিয়ারির সঙ্গে দেখা করেন দুজন। ততক্ষণও মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আলোচনায় ছিল ফড়নবীসের নাম। তার পরই সংবাদ সম্মেলনে একনাথ শিণ্ডের নাম মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা করে চমকে দেন বিজেপি নেতা ফড়নবীস।      

মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নাম ঘোষণার পর শিণ্ডে বলেন, ‘বালাসাহেবের হিন্দুত্বের কথা ভেবে আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমাদের বিধায়কদের কেন্দ্রে উন্নয়নমূলক কাজ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আমাদের সঙ্গে ৫০ জন বিধায়ক রয়েছেন। ’ ফড়নবীসের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শিণ্ডে বলেন, ‘বিজেপির ১২০ জন বিধায়ক রয়েছেন। তার পরও মুখ্যমন্ত্রীর পদ গ্রহণ করেননি ফড়নবীস। ওনার কাছে আমি কৃতজ্ঞ। সেই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী, অমিত শাহের প্রতিও কৃতজ্ঞ। ’

চরম রাজনৈতিক অনিশ্চয়তার মুখে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী শিবসেনা নেতা উদ্ধব ঠাকরে বুধবার পদত্যাগ করতে বাধ্য হন। এর পেছনে ভূমিকা রেখেছে দলীয় নেতা তথা বিধায়কদের একাংশের বিদ্রোহের ঘটনা। দলের বেশির ভাগ আইনপ্রণেতাই সরে দাঁড়িয়েছেন উদ্ধবের পাশ থেকে। অন্যান্য বিষয়ের পাশাপাশি তাঁরা প্রশ্ন তুলেছেন ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি) ও কংগ্রেসের সঙ্গে তাঁর জোট বাঁধা নিয়ে।

বিদ্রোহীদের দাবি, উদ্ধব ঠাকরে জোট বাঁধতে গিয়ে শিবসেনার মূল মতাদর্শ ‘হিন্দু জাতীয়তাবাদ’ থেকে সরে গেছেন। ৩৯ আইনপ্রণেতার এই বিদ্রোহে নেতৃত্ব দিয়েছেন একনাথ শিণ্ডে।

বিজেপির সঙ্গে শিবসেনার সম্পর্ক অম্লমধুর। ৩০ বছরেরও বেশি সময় ধরে জোটবদ্ধই ছিল দল দুটি। কিন্তু ২০১৯ সালে মুখ্যমন্ত্রীর পদকে কেন্দ্র করে ভাঙন ধরে বন্ধুত্বে।  

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

 

 

 



সাতদিনের সেরা