kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ আগস্ট ২০২২ । ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ । ১২ মহররম ১৪৪৪

নজরদারিতে ছিলেন অসলোর বন্দুকধারী

অসলোর স্থানীয় পত্রিকা সূত্র জানায়, জানিয়ার মাতাপুর ‘ইসলাম ধর্মের বিরুদ্ধে আপত্তিকর চিত্র ও লেখালেখির বিরুদ্ধে’ নিজের মতামত তুলে ধরেছিলেন

সাব্বির খান, স্ক্যান্ডিনেভিয়া প্রতিনিধি   

২৭ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নরওয়ের রাজধানী অসলোতে পানশালায় বন্দুক হামলার ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তির পরিচয় প্রকাশ করা হয়েছে। গত শুক্রবার রাতের ওই ঘটনায় দুজন নিহত এবং ২০ জন গুরুতর আহত হন। পানশালাটি সমকামীদের জনপ্রিয় ভেন্যু হিসেবে পরিচিত।  

নরওয়ের পুলিশ জানায়, গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তির নাম জানিয়ার মাতাপুর (৪২)।

বিজ্ঞাপন

ইরানের কুর্দি অঞ্চলে জন্ম নেওয়া মাতাপুর স্ক্যান্ডিনেভীয় দেশটিতে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। তিনি নব্বইয়ের দশকে তাঁর মা-বাবা ও দুই ভাই-বোনের সঙ্গে নরওয়েতে আসেন। আদালতের নথিতে উল্লেখ রয়েছে, তিনি বর্তমানে রাজধানী অসলোতে বসবাস করছেন।

২০১৫ সাল থেকেই মাতাপুর নজরদারিতে ছিলেন বলে জানায় পুলিশ। পুলিশের তথ্য মতে, এই সময়ের মধ্যে তিনি উগ্রপন্থী সংগঠন আইএসের প্রতি সমর্থন প্রকাশ করেন এবং উগ্রবাদীদের সঙ্গে জড়ান।

সম্প্রতি ইসলাম ধর্মের বিরুদ্ধে আপত্তিকর চিত্র এবং লেখালেখির বিরুদ্ধে নিজের মতামত তুলে ধরেছিলেন মাতাপুর। পুলিশ জানায়, গত মাসেই তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল। তবে নিরাপত্তার জন্য হুমকি মনে না হওয়ায় পরে ছেড়ে দেওয়া হয়।

পুলিশ আরো জানায়, এখন পর্যন্ত সরাসরি কোনো সন্ত্রাসী সংগঠনের সঙ্গে মাতাপুরের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তিনি এককভাবেই অপরাধটি ঘটিয়েছেন। অসলো পুলিশ এখনো জিজ্ঞাসাবাদ চালিয়ে যাচ্ছে।

তবে অসলোর স্থানীয় পত্রিকা সূত্র জানায়, জানিয়ার মাতাপুর ‘ইসলাম ধর্মের বিরুদ্ধে আপত্তিকর চিত্র ও লেখালেখির বিরুদ্ধে’ নিজের মতামত তুলে ধরেছিলেন। নরওয়ের একজন পরিচিত ইসলামপন্থীর গাড়ি থেকে নামিয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল।

অতীতে স্কুলের এক অনুষ্ঠানে মারামারিতে জড়ানোর প্রমাণ আছে জানিয়ার মাতাপুরের বিরুদ্ধে। এ ছাড়া মাদক মামলায় ১২০ দিনের কারাদণ্ডও দেওয়া হয়েছিল তাঁকে। আদালতের নথি থেকে জানা যায়, মাতাপুর সিজোফ্রেনিয়ায় আক্রান্ত। তিনি মানসিক অবসাদেও ভুগছেন। মাতাপুরের আইনজীবী বলেছেন, তিনি এসব রোগের জন্য সম্প্রতি কড়া ডোজের ওষুধ সেবন করেছেন।

 



সাতদিনের সেরা