kalerkantho

বুধবার । ২৯ জুন ২০২২ । ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৮ জিলকদ ১৪৪৩

ইইউয়ের কাছে এক ধাপ এগোল ইউক্রেন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৪ জুন, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইউক্রেনকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) প্রার্থী হিসেবে মর্যাদা দেওয়ার প্রস্তাবে সায় দিয়েছেন ইইউ পার্লামেন্টের বেশির ভাগ সদস্য।

ব্রাসেলসে চলমান ইইউ শীর্ষ সম্মেলনে ইউক্রেনকে প্রার্থীর মর্যাদা দেওয়ার পক্ষে জোটের পার্লামেন্টে ভোট পড়ে ৫২৯টি। বিপক্ষে পড়ে ৪৫টি এবং ১৪ সদস্য ভোটে অনুপস্থিত ছিল।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টে ইউক্রেনের পাশাপাশি মলদোভাকেও প্রার্থিতা দেওয়ার প্রস্তাব গৃহীত হয়।

বিজ্ঞাপন

ইইউতে অন্তর্ভুক্ত হতে প্রথমে আবেদন করতে হয়। প্রাথমিক অনুমোদন পেলে সে দেশকে প্রার্থীর মর্যাদা দেওয়া হয়। পরবর্তী সময়ে দেশটির সরকার ও ইইউ নির্দিষ্ট কিছু বিষয়ে সম্মত হলে প্রার্থী দেশটিকে জোটের সদস্য হিসেবে অনুমোদন দেওয়া হয়।

এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার ইউক্রেন জানিয়েছে, তারা যুক্তরাষ্ট্র থেকে হিমারস ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থার চালান পেয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো যৌথভাবে ইউক্রেনে হিমারস ও হাউইত্জারের মতো শক্তিশালী সামরিক সরঞ্জাম পাঠাচ্ছে। পশ্চিমা বিশ্ব থেকে যুদ্ধাস্ত্র পেলেও ইউক্রেন বলছে, সেগুলো প্রয়োজনের তুলনায় কম। আরো বেশি পরিমাণে শক্তিশালী অস্ত্র পেতে তারা আবেদন করছে।

ইউক্রেন সংকটের মধ্যেই পশ্চিমা দেশগুলোর সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্কে নতুন উত্তেজনা তৈরি হয়েছে লিথুয়ানিয়ার এক সিদ্ধান্তে। রাশিয়ার একটি অংশের কিছু খাদ্যপণ্য পরিবহন করা হয় দেশটির মধ্য দিয়ে। রাশিয়ার ওপর ইইউয়ের নিষেধাজ্ঞার অংশ হিসেবে খাদ্য পরিবহন বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে লিথুয়ানিয়া।

এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নেওয়ার হুমকি দিয়েছে রাশিয়া। ক্রেমলিন বলছে, এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, যা লিথুয়ানিয়ার জনগণের ওপর ‘উল্লেখযোগ্য নেতিবাচক প্রভাব’ ফেলবে।

এদিকে রাশিয়ার গ্যাসের ওপর নির্ভরতা কমাতে নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে জার্মানি। জ্বালানিসংকট মোকাবেলায় তাদের তিন স্তরের পদক্ষেপ ঠিক করা ছিল। এত দিন প্রথম স্তরে থাকলেও রাশিয়ার ওপর নির্ভরতা আরো কমাতে এখন দ্বিতীয় স্তর শুরু করছে দেশটি।

এর মধ্যে জাতিসংঘ জানিয়েছে, যুদ্ধ শুরুর পর ইউক্রেনের ১৫২টি সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য পুরোপুরি বা আংশিক নষ্ট হয়েছে। ইউনেসকো পরিচালক আদ্রে আজুলে বলেন, যেকোনো পরিস্থিতিতেই ইউক্রেনের সাংস্কৃতিক স্থান ও ঐতিহ্যে হামলা বন্ধ হওয়া উচিত। সূত্র : এএফপি ও টাইমস অব ইন্ডিয়া



সাতদিনের সেরা