kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

লক্ষ্য অর্জনে ‘তাড়া নেই’ ক্রেমলিনের

যুদ্ধের চতুর্থ মাসে দোনবাসে জোর রাশিয়ার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৫ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লক্ষ্য অর্জনে ‘তাড়া নেই’ ক্রেমলিনের

ইউক্রেনের বাখমুত শহর ছাড়ছে বাসিন্দারা। গতকাল তোলা। ছবি : এএফপি

ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান যখন চতুর্থ মাসে গড়াল, তখন দোনবাসখ্যাত পূর্বাঞ্চলের লুহানস্কে ইউক্রেনীয়দের সর্বশেষ প্রতিরোধ গুঁড়িয়ে দিতে ব্যস্ত সময় পার করছে রুশ বাহিনী। তবে সেই ব্যস্ততা তাড়াহুড়া করে যুদ্ধ শেষ করার মতো পর্যায়ে নয়, খোদ ক্রেমলিনের দিক থেকে এসেছে এমন বার্তা। শীর্ষ পর্যায়ের এক রুশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, অভীষ্ট লক্ষ্য অর্জনে তাঁদের কোনো তাড়া নেই।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনজুড়ে একযোগে হামলা শুরু করে রাশিয়া।

বিজ্ঞাপন

‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ হিসেবে শুরু করা সেই হামলায় ক্ষেপণাস্ত্র পড়ে খোদ ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভেও। অবিলম্বে স্থলপথেও কিয়েভের পথে হানা দেয় রুশ বাহিনী। তবে বারবার ইউক্রেনীয় সেনাদের শক্ত প্রতিরোধের মুখে পড়ে পেছাতে বাধ্য হওয়া রুশ বাহিনী লক্ষ্য পাল্টায়। সেই অনুসারে কৌশলগত লাভ-লোকসানের হিসাব কষে ইউক্রেনের পূর্ব ও দক্ষিণাঞ্চলের পুরোটায় নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠায় মন দেয় রাশিয়া। ওই দুই অঞ্চলের বেশির ভাগ এলাকা এরই মধ্যে তাদের দখলে।

এ অবস্থায় গত সোমবার রাতে এক ভাষণে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি বলেন, ‘সামনের সপ্তাহগুলোর যুদ্ধ কঠিন হবে এবং এ ব্যাপারে আমাদের সচেতন থাকতে হবে। সবচেয়ে কঠিন যুদ্ধ পরিস্থিতি এখন দোনবাসে। ’ সেই দোনবাসের বাখমুত, পপাসনা ও সেভেরোদোনেেস্কর অবস্থা যে সবচেয়ে ভয়াবহ, সেটা আলাদাভাবে উল্লেখ করেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি।  

হামলায় ধারাবাহিকতা ধরে রাখলেও ক্রেমলিন কোনো নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে যুদ্ধ শেষ করতে তৎপর নয়, এমনটা জানান রুশ নিরাপত্তা পরিষদপ্রধান নিকোলাই পাত্রুশেভ। গতকাল এক রুশ সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘প্রেসিডেন্টের নির্ধারিত প্রতিটি লক্ষ্য পূরণ করা হবে। এর অন্যথা হতে পারে না। কারণ ঐতিহাসিক সত্যসহ সব সত্য আমাদের পক্ষে। আমরা কোনো সময়সীমা রক্ষার পেছনে ছুটছি না। ’ সূত্র : এএফপি



সাতদিনের সেরা