kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

কংগ্রেসের চিন্তন শিবির শেষ

দল আবার চাঙ্গা করতে একগুচ্ছ পরিকল্পনা

♦ ৫০ বছরের কম বয়সীদের প্রতিনিধিত্ব ৫০%
♦ দক্ষতা মূল্যায়ন ও জনমত বুঝতে দুটি বিভাগ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দলীয় মনোনয়ন ও পদ বণ্টনে বহুল প্রতীক্ষিত কিছু সংস্কার প্রস্তাব অনুমোদন করেছে ভারতের জাতীয় কংগ্রেস দল। ‘নব সংকল্প চিন্তন শিবির’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী পর্যালোচনা বৈঠকের শেষ দিন গতকাল রবিবার দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী কর্তৃপক্ষ কংগ্রেস ওয়ার্কি কমিটি (সিডাব্লিউসি) এসব প্রস্তাব অনুমোদন করে। রাজস্থান রাজ্যের উদয়পুরে এটি আয়োজিত হয়েছিল।

কংগ্রেস দল এখন থেকে নির্বাচনে ‘এক পরিবার থেকে একজন মনোনয়ন’ এবং সংগঠনে ‘এক ব্যক্তির এক পদ’ চালু করবে।

বিজ্ঞাপন

দেশের রাজনীতিতে পুরনো শক্ত অবস্থান ফিরে পেতেই সাংগঠনিক কাঠামো ও দল পরিচালনা পদ্ধতিতে সংস্কার প্রস্তাব গ্রহণ করেছে ঐতিহ্যবাহী দলটি।

কংগ্রেসের সূত্র বৈঠক শুরুর আগেই জানিয়েছিল, একজন ব্যক্তিকে পাঁচ বছরের বেশি দলীয় পদে না রাখার সিদ্ধান্ত আসতে পারে। মেয়াদ শেষে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে তিন বছরের বিশ্রাম দেওয়া হবে। গতকাল দেখা গেল, চিন্তন শিবিরে প্রস্তাবটি অনুমোদিত হয়েছে। উল্লেখ্য, গতকাল শিবিরের শেষ দিনে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী বক্তব্য দিয়েছেন।

অন্য গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তগুলো হলো, সর্বস্তরের সংগঠনে সংখ্যালঘু, দলিতসহ পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর ৫০ শতাংশ প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা হবে। সর্বস্তরে ৫০ বছরের কম বয়সীদের জন্য দলে আলাদা করে ৫০ শতাংশ ভূমিকা রাখা হবে।

কংগ্রেস সূত্র জানায়, জনগণের মতামত জানা নিশ্চিত করতে এবং নির্বাচনী লড়াইয়ের মাঠ প্রস্তুত করতে জরিপ পরিচালনার জন্য দপ্তর খোলা হবে। জাতীয় স্তরে প্রশিক্ষণ বিভাগের পাশাপাশি যোগাযোগ গড়ে তোলার জন্য আলাদা বিভাগ থাকবে। নেতৃত্বের দক্ষতা যাচাই করতে চালু করা হবে ‘মূল্যায়ন বিভাগ’। এ ছাড়া সমস্ত শূন্যপদ ৯০ থেকে ১২০ দিনের মধ্যে পূরণ করবে দল।

তবে সিডাব্লিউসি ‘কংগ্রেস ইলেকশন কমিটি’ নামের বিভাগ বাতিল করে ‘পার্লামেন্টারি বোর্ড’ গঠনের প্রস্তাব অনুমোদন করেনি। দলের বিদ্রোহী অংশের গুরুত্বপূর্ণ দাবিগুলোর মধ্যে এটি ছিল অন্যতম।

দলীয় সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী রাজনীতি, অর্থনীতি, মতাদর্শ, সামাজিক বিষয়সহ কয়েকটি বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে ছয়টি প্যানেল গঠন করে দেন। গতকাল চিন্তন শিবিরের পার্শ্বরেখায় সোনিয়া এসব প্যানেলের মতামত নেন। পরে সিডাব্লিউসি তা অনুমোদন দেয়। সূত্র : এনডিটিভি ও টাইমস অব ইন্ডিয়া

 



সাতদিনের সেরা