kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৬ আগস্ট ২০২২ । ১ ভাদ্র ১৪২৯ । ১৭ মহররম ১৪৪৪

কভিডে মৃত্যুর সংখ্যা

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদনে ভারতে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৭ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রতিবেদনে ২০২১-এর ডিসেম্বর পর্যন্ত কভিডে মৃত্যুর সংখ্যা সরকারি হিসাবের দশগুণ উল্লেখ করায় তা নিয়ে দেশটিতে নানামুখী প্রতিক্রিয়া হয়েছে। গত বৃহস্পতিবারের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ভারতে প্রকৃতপক্ষে ৪৭ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়েছে যা ওই সময়ে করোনায় পুরো বিশ্বে মোট মৃত্যুর এক-তৃতীয়াংশ।

ভারতের সরকারসহ বিভিন্ন মহলে এ প্রতিবেদন নিয়ে উঠেছে সমালোচনার ঝড়। আবার কোনো কোনো মহল বিষয়টি নাকচ করে না দিয়ে উদ্বেগও প্রকাশ করেছে।

বিজ্ঞাপন

ডব্লিউএইচও-র উপাত্ত সংগ্রহ পদ্ধতিকে ‘পরিসংখ্যানগতভাবে ত্রুটিপূর্ণ এবং বৈজ্ঞানিকভাবে সন্দেহজনক’ আখ্যা দিয়েছে ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

তবে বৈশ্বিক স্বাস্থ্য সংস্থাটির এ প্রক্রিয়ার গুরত্বপূর্ণ অংশের সঙ্গে যুক্ত থাকা বিশেষজ্ঞ প্রভাত ঝা বলেছেন, প্রতিষ্ঠানটির তথ্যউপাত্তের ওপর তার পুরোপুরি সমর্থন রয়েছে।

প্রভাত ঝা বলেন, ‘আমি এই সংখ্যাগুলোর (বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার) বিষয়ে একমত। ভারত সরকারের ২০২০ সালের সিভিল রেজিস্ট্রেশন সিস্টেমের (সিআরএস) প্রকাশিত উপাত্ত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২০২০ সালের অনুমানকে সমর্থন করে। সিআরএস ২০২০ সালে ৮১ লাখ ভারতীয়র মৃত্যু রেকর্ড করেছে। আপনি তা যদি পূর্ববর্তী দুই বছরের সঙ্গে মেলান, তাহলে পার্থক্য আসে আট লাখ মৃত্যুর। এক বছরের সঙ্গে মেলানো উচিত হবে না - তা হবে সুবিধাজনকভাবে বাছাই করা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২০২০ সালের মৃত্যুর অনুমান কী? সেটিও আট লাখ মৃত্যু। কিন্তু রাষ্ট্রীয় হিসাবের ভিত্তিতে ২০২০ সালের মৃত্যু নিয়ে আমাদের অনুমান কী? এটি গিয়ে দাঁড়াচ্ছে ছয় লাখে, আর আমরা ধরেছি মাত্র আট মাস। ’

অন্যদিকে, ভারতের কভিড ওয়ার্কিং গ্রুপ-এর প্রধান ডক্টর এনকে অরোরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদনকে ‘উদ্বেগজনক’ মনে করছেন। তিনি বলেন, ১৫-২০ শতাংশের অমিল থাকলেও ভাইরাস সংক্রান্ত বেশিরভাগ মৃত্যু যাতে ধরা পড়ে তা নিশ্চিত করেছে ভারতের শক্তিশালী ও নির্ভুল মৃত্যু নিবন্ধন প্রক্রিয়া সিআরএস।

রাহুল গান্ধীর নিন্দা

এদিকে, গতকাল শুক্রবার এক টুইট বার্তায় ক্ষমতাসীন মোদি সরকারের সমালোচনা করেছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তিনি লিখেছেন, ‘কভিড মহামারীর কারণে ভারতে ৪৭ লাখ মানুষ মারা গেছেন। সরকারের দাবি অনুযায়ী চার লাখ ৮০ হাজার নন। বিজ্ঞান মিথ্যা বলে না। মোদি বলেন। ’

অন্যদিকে, রাহুল গান্ধীর পাল্টা সমালোচনা করে বিজেপির মুখপাত্র সম্বিত পাত্র বলেছেন, ‘ডব্লিউএইচও-এর ডেটা, আর কংগ্রেসের ‘বেটা’-ই ভুল। ’ পাশাপাশি তিনি অভিযোগ করেছেন, ২০১৪ সাল থেকে নরেন্দ্র মোদি ভাবমূর্তি বারবার ক্ষুন্ন করতে গিয়ে ভারতের ভাবমূর্তি-ই ক্ষুন্ন করছেন রাহুল গান্ধী। সূত্র: এনডিটিভি



সাতদিনের সেরা