kalerkantho

বুধবার । ২৯ জুন ২০২২ । ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৮ জিলকদ ১৪৪৩

ইউক্রেন সংকট

মস্কোর ব্যাপক ক্ষতি ও ভুলই প্রকটভাবে ফুটে উঠেছে

পাঁচজন হোক বা ১৫ জনই হোক, তারা যে জেনারেল হারাচ্ছে, এর মধ্য দিয়ে রাশিয়ার নির্দেশ ও নিয়ন্ত্রণ ভাগ যে অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পড়েছে তাই ফুটে উঠছে -কলিন ক্লার্ক, পরিচালক, সুউফান সেন্টার, নিউ ইয়র্কভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩০ মার্চ, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ইউক্রেন আগ্রাসনে অস্বাভাবিক হারে রাশিয়ার জ্যেষ্ঠ সামরিক কর্মকর্তাদের প্রাণ হারানোর ঘটনা ঘটছে। এর মধ্য দিয়ে মস্কোর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ও রসদগত সমস্যার বিষয়গুলোই প্রকটভাবে ফুটে উঠেছে। অন্তত সাতজন বিভিন্ন স্তরের জেনারেল (নিহত সর্বোচ্চ কর্মকর্তাটি লে. জেনারেল) এ পর্যন্ত নিহত হয়েছেন।

পশ্চিমা কর্মকর্তারা বলছেন, উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তার প্রাণহানির দিক থেকে চিন্তা করলে ইউক্রেন যুদ্ধে নিহতের সংখ্যাটি অস্বাভাবিক।

বিজ্ঞাপন

বর্তমান পরিস্থিতিতে স্বাধীনভাবে এই সংখ্যা যাচাই করা সম্ভব নয়। রাশিয়ার সূত্র এখন পর্যন্ত শুধু তাঁদের একজন জেনারেল ও অন্য এক জ্যেষ্ঠ নৌ কমান্ডারের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে।

গত শুক্রবার ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, প্রাণ হারানো সপ্তম রুশ শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তার নাম লেফটেন্যান্ট জেনারেল ইয়াকভ রেজানেতসেভ। ইউক্রেনের দক্ষিণের শহর খেরসনের বাইরে চরনোবাইভকা অঞ্চলের লড়াইয়ে প্রাণ হারিয়েছেন তিনি।

নিউ ইয়র্কভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান সুউফান সেন্টারের পরিচালক কলিন ক্লার্ক বলেন, ‘পাঁচজন হোক বা ১৫ জনই হোক, তারা যে জেনারেল হারাচ্ছে, এর মধ্য দিয়ে রাশিয়ার নির্দেশ ও নিয়ন্ত্রণ ভাগ যে অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পড়েছে এবং ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর সফলতায় তাদের যোগাযোগ যে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে তাই ফুটে উঠছে। ’

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কির উপদেষ্টা মিখাইলো পোদোলিয়াক এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘এটি সামরিক বাহিনীর পুরোপুরি অপ্রস্তুত হয়ে পড়ারই লক্ষণ। এই সব মিলে রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর মনোবল ভেঙে দিচ্ছে। তারা বুঝতে পারছে তাদের শীর্ষ নেতৃত্ব সম্পূর্ণভাবে অকার্যকর হয়ে উঠেছে। ’

অন্যদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক জ্যেষ্ঠ ফরাসি সামরিক কর্মকর্তা বলেছেন, ইউক্রেনে রাশিয়ার বাহিনী বিশেষ করে গোয়েন্দা কার্যক্রম, রসদগত ও কৌশলগত যেসব ভুল দেখিয়েছে, তাতে বাধ্য হয়ে যুদ্ধের সম্মুখভাগে যেতে হয়েছে সামরিক প্রধানদের।

এক মাসের বেশি সময় ধরে চলমান আগ্রাসনের দুটি পর্যায়ে শুধু এক হাজার ৩শর কিছু বেশি সৈনিক নিহত হওয়ার কথা আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়েছে রাশিয়া। গত শনিবারের আগ পর্যন্ত প্রায় দুই সপ্তাহ দেখা মেলেনি রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগুয়ের। ইউক্রেন কর্তৃপক্ষের দাবি, রণাঙ্গনে ব্যর্থতার জন্য প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন কড়াভাবে তিরস্কার করায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন শোইগুই। তবে ক্রেমলিনের দাবি, সব ঠিক আছে। সূত্র : এএফপি।



সাতদিনের সেরা