kalerkantho

বুধবার ।  ২৫ মে ২০২২ । ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩  

পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা

নিরাপত্তা নীতি পার্লামেন্টে তোলা হতে পারে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৭ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মঈদ ইউসুফ বলেছেন, সে দেশের জাতীয় নিরাপত্তা নীতি (এনএসপি) হলো ‘বিকাশমান নথি’। এ জন্য রাষ্ট্রকে টেকসই করতে ও সবার মধ্যে ঐকমত্য তৈরি করতে দেশের সব মহলের মধ্যে বুদ্ধিবৃত্তিক বিতর্ক এবং গঠনমূলক আলোচনা প্রয়োজন।

পাকিস্তানের বিরোধী দলগুলো গত মাসের শুরুতে জাতীয় নিরাপত্তা সংক্রান্ত পার্লামেন্টারি কমিটির কাছে নিরাপত্তা নীতির বিষয়ে জাতীয় নিরাপত্তা বিভাগের ব্রিফিং বয়কট করেছিল। মঈদ ইউসুফ বলেছেন, তার পরও তিনি একটি বৃহত্তর ঐকমত্য তৈরি করতে পার্লামেন্ট বা সংশ্লিষ্ট হাউস কমিটির সামনে নীতি উপস্থাপন করতে সব সময় তৈরি।

বিজ্ঞাপন

নিরাপত্তা উপদেষ্টা আরো বলেন, জাতীয় নিরাপত্তা নীতি বাধ্যতামূলক বার্ষিক পর্যালোচনার বিষয়টি সরকার নিশ্চিত করেছে। কারণ প্রতিনিয়ত চারদিকে পরিবর্তন ঘটছে। কোনো নতুন সরকার ক্ষমতা গ্রহণ করলে তাদের এটি পর্যালোচনা করার ক্ষমতা থাকবে বলেও মনে করেন তিনি।

মঈদ ইউসুফ এর আগে বলেছিলেন, সদ্যঃপ্রকাশ করা জাতীয় নিরাপত্তা নীতি অনুসারে দেশের নাগরিকদের নিরাপত্তা, প্রতিরক্ষা এবং মর্যাদা নিশ্চিত করা হবে। তিনি বলেন, নিরাপত্তা নীতিতে অর্থনৈতিক নিরাপত্তাকে মূল ধরা হয়েছে। একটি শক্তিশালী অর্থনীতির মাধ্যমে বিনিয়োগের আরো ক্ষেত্র তৈরি হবে, যা বণ্টনের মাধ্যমে ভবিষ্যতে সামরিক ও নাগরিক নিরাপত্তা আরো শক্তিশালী হবে।

গত শুক্রবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দেশের প্রথম জাতীয় নিরাপত্তা নীতি প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, সামরিক বাহিনীর বদলে এই নীতির মূল ভিত্তি দেশের নাগরিক স্বার্থ। তিনি বলেন, নাগরিকদের নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক স্বার্থ রক্ষায় ভবিষ্যতের জন্য একটি বহুমুখী কৌশল গ্রহণ করা অত্যন্ত প্রয়োজন ছিল। সূত্র : দ্য ডন



সাতদিনের সেরা