kalerkantho

শনিবার ।  ২১ মে ২০২২ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩  

শোক সংবাদ থেকে পুলিশের কবজায়

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শোক সংবাদ থেকে পুলিশের কবজায়

নিকোলাস রসি

আইনের হাত থেকে বাঁচতে নিজের মৃত্যুর খবর রটিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। যুক্তরাষ্ট্রের ওই পলাতক আসামি যুক্তরাজ্যের গ্লাসগোর এক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গ্রেপ্তার হয়েছেন। তাঁকে বিচারের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে ফিরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ চলছে।

বিজ্ঞাপন

নিকোলাস রসি নামের ৩৪ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোল খুঁজছিল। যুক্তরাষ্ট্রের ইউটা অঙ্গরাজ্যের এক ধর্ষণ মামলার ফেরার আসামি তিনি।

কভিড-১৯-এ আক্রান্ত হওয়ায় গত ডিসেম্বর মাসে রসিকে কুইন এলিজাবেথ ইউনিভার্সিটি হসপিটালে ভর্তি করা হয়। তবে সেখানে তিনি আর্থার নাইট ছদ্মনাম ব্যবহার করেন। স্কটল্যান্ড পুলিশ বলেছে, তাঁকে আন্তর্জাতিক পরোয়ানায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করে বলেছে, নিকোলাস রসি রোড আইল্যান্ড অঙ্গরাজ্যে নিকোলাস অ্যালাভারডিয়ান নামেও পরিচিত। তিনি সেখানে স্থানীয় রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। রসি অঙ্গরাজ্যটির সরকারের শিশু কল্যাণ ব্যবস্থার একজন সমালোচক। তিনি ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের মিডিয়াকে জানিয়েছিলেন তাঁর নন-হজকিন লিম্ফোমা (এক ধরনের ক্যান্সার) হয়েছে, যা অনেক দূর বেড়েছে। তিনি আর মাত্র কয়েক সপ্তাহ বাঁচবেন। পরে বেশ কয়েকটি মার্কিন মিডিয়া প্রতিষ্ঠান খবর দেয় যে রসি ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে মারা গেছেন। এরপর অনলাইনে পোস্ট করা এক স্মৃতিচারণে বলা হয়, নিকোলাস রসি ছিলেন শিশুদের অধিকার নিয়ে ‘দুই দশক ধরে সামনের সারিতে থেকে কাজ করে যাওয়া এক যোদ্ধা। ’ এতে আরো বলা হয়, তাঁর দেহভস্ম সাগরে ছিটিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বিভিন্ন তদন্ত সংস্থার অনুসন্ধানে নিকোলাস রসির আরো কিছু নাম পাওয়া গেছে। সেগুলো হচ্ছে নিকোলাস অ্যালাভারডিয়ান রসি, নিকোলাস এডওয়ার্ড রসি, নিক অ্যালান, নিকোলাস ব্রাউন, আর্থার ব্রাউন ও আর্থার নাইট।

পালক বাবার সঙ্গে প্রতারণার দায়েও এফবিআই রসির বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি করেছিল। তিনি বাবার নামে ক্রেডিট কার্ড নিয়ে দুই লাখ ডলারের বেশি ব্যয় করেছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রভিডেন্স জার্নাল পত্রিকায় গত শুক্রবার বলা হয়, রসি সাংবাদিকদের তাঁর নন-হজকিন লিম্ফোমা হয়েছে—এ কথা বলার কয়েক সপ্তাহ আগে ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে ইউটার এক তদন্তকারী এফবিআইকে জানান, রসি যুক্তরাজ্যে পালিয়ে আছেন। সূত্র : বিবিসি



সাতদিনের সেরা