kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ মাঘ ১৪২৮। ২৭ জানুয়ারি ২০২২। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

মহামারিকালে ধনীরা আরো ধনী হয়েছে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কভিড মহামারিতে ধনীরা আরো বেশি ধনী হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ওয়ার্ল্ড ইনইকুয়ালিটি রিপোর্টে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।

প্রতিবেদন অনুসারে, ১৯৯৫ সালে বিশ্বের মোট সম্পদের এক-তৃতীয়াংশেরও বেশি সম্পদের মালিকানা ছিল বিশ্বের মোট জনগোষ্ঠীর মাত্র ১ শতাংশের হাতে। এই ১ শতাংশ মানুষের চেয়ে যাদের সম্পদ কম ছিল, তারা মহামারিকালে আরো সম্পদের মালিক হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

তাদের সম্পদ যে পরিমাণ বেড়েছে, তাতে তারা শীর্ষ ১ শতাংশ ধনীদের কাতারে পৌঁছে গেছে এবং এতে তাদের সংখ্যা ৩ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। প্রতিবেদনে বিশেষভাবে ২০২০ সালের কথা বলা হয়েছে। কারণ এ সময় ধনীর সংখ্যা বৃদ্ধির সূচক উল্লম্বভাবে বেড়েছে। ১৯৯৫ সালে ধনীদের ১ শতাংশ যেখানে বিশ্বের মোট সম্পত্তির এক-তৃতীয়াংশ ভোগ করত, সেখানে একেবারে নিচের কাতারের ৫০ শতাংশ মানুষের হাতে ছিল মাত্র ২ শতাংশ সম্পদ। প্যারিস স্কুল অব ইকোনমিকসের ওয়ার্ল্ড ইনইকুয়ালিটি ল্যাবের সহপরিচালক লুকাস চানসেল বলেন, কভিড-১৯ মহামারির ১৮ মাসে বিশ্ব আরো বেশি বিভক্ত হয়ে গেছে। তিনি বলেন, এ সময়ে বিলিয়নেয়ারদের সম্পত্তির পরিমাণ চার ট্রিলিয়ন ডলারে ঠেকেছে। এর বিপরীতে বিশ্বের ১০ কোটি মানুষ চরম দুর্ভিক্ষের মুখে পতিত হয়েছে। ফোর্বস ম্যাগাজিনের এ বছরের ধনীর তালিকার হিসাবে দেখা গেছে, প্রথম ১০ ধনী ব্যক্তির প্রত্যেকের সম্পত্তির পরিমাণ ১০ হাজার কোটি ডলারের বেশি। তাদের মধ্যে টেসলার মালিক এলন মাস্কের সম্পত্তির পরিমাণই ২৬ হাজার ৪৫০ কোটি ডলার।

২২৮ পৃষ্ঠার এ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বজুড়ে সম্পত্তির সুষম বণ্টন নিশ্চিত করতে এবং ট্যাক্স ফাঁকি দেওয়া প্রতিহত করতে তাদের ওপর করারোপ করারও চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে। সূত্র : এএফপি।



সাতদিনের সেরা