kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ মাঘ ১৪২৮। ১৮ জানুয়ারি ২০২২। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

৪০ বছর পর ফিরল ভাস্কর্যটি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৫ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৪০ বছর পর ফিরল ভাস্কর্যটি

ফিরে পাওয়া ভাস্কর্য

নেপালের এক মন্দির থেকে চুরি হওয়া দুই হিন্দু ধর্মের দেবতার এক প্রাচীন ভাস্কর্যের খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রে। দীর্ঘ ৪০ বছর পর সেই ভাস্কর্যটি ফেরত এসেছে তাদের পুরনো আবাসে।

ফিরে আসা ভাস্কর্যটি কয়েক শ বছরের পুরনো। এর মধ্যে রয়েছে দেবী লক্ষ্মী ও নারায়ণের মূর্তি। ১২ থেকে ১৫ শতাব্দীর মাঝমাঝি সময়ে পাথর দিয়ে গড়া হয় এটি। ১৯৮৪ সালে কাঠমাণ্ডুর মন্দির থেকে ভাস্কর্যটি চুরি যায়। এর ছয় বছর পর ভাস্কর্যটির স্থান হয় যুক্তরাষ্ট্রের ডালাস শিল্প জাদুঘরে। গত তিন-চার বছরের চেষ্টায় ভাস্কর্যটি ফেরত দিতে রাজি হয় যুক্তরাষ্ট্র। তবে এর আগে চলে বিস্তর তদন্ত। যৌথ তদন্ত শেষে গত মার্চে ডালাস শিল্প জাদুঘর ভাস্কর্যটি ফেরত দিতে রাজি হয়।

নেপালের কাঠমাণ্ডুতে গতকাল শনিবার ঘটা করে মন্দিরটির পুরনো জায়গায় ভাস্কর্যটি আবার বসানো হয়। এ সময় পালন করা হয় নানা ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান। বিশেষ বেদিতে বসানোর সময় মন্দিরের পুরোহিত মন্ত্র পাঠ করেন। স্থানীয় গায়করা আঞ্চলিক বাদ্য বাজিয়ে গান পরিবেশন করেন। ভাস্কর্যটিকে ফুলের মালা দিয়ে সাজানো হয়।

‘নেপাল হেরিটেজ রিকভারি ক্যাম্পেইন’-এর দিলেন্দ্রা রাজ শ্রেষ্ঠা বলেন, ‘আমরা খুবই খুশি। আমাদের তিন-চার বছরের কষ্ট কাজে দিয়েছে। সবাই দিনটি উদযাপন করছে।’ তিনি আরো জানান, নিরাপত্তার জন্য মন্দিরটিতে সিসিটিভি ক্যামেরা ও লেজার সেন্সর বসানো হয়েছে।

নেপালের সমাজ গভীরভাবে ধর্মপ্রাণ। এখানকার হিন্দু ও বুদ্ধমন্দির এবং ঐতিহ্যবাহী স্থাপনাগুলো দেশের মানুষের দৈনন্দিন জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। তবে পঞ্চাশের দশকের দিকে দেশটি বাইরের বিশ্বের কাছে উন্মুক্ত হওয়ার পর থেকে অনেক মন্দির ও প্রাচীন স্থাপনার মূল্যবান ভাস্কর্য, মূর্তি, চিত্র, নকশা করা জানালা এমনকি দরজাও ক্রমে হারিয়ে গেছে। এর অনেকগুলোই দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সহায়তায় বিদেশে পাচার করা হয়েছে। সূত্র : এএফপি।



সাতদিনের সেরা