kalerkantho

সোমবার । ৩ মাঘ ১৪২৮। ১৭ জানুয়ারি ২০২২। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দিল্লির দূষণের জন্য পাকিস্তান দায়ী!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির দূষণের জন্য পরোক্ষভাবে পাকিস্তানকে দায়ী করেছে উত্তর প্রদেশের বিজেপি সরকার। সুপ্রিম কোর্টে শুনানিতে গতকাল শুক্রবার রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সরকারের আইন কর্মকর্তা এই দাবি করেন।

ভারতের প্রধান বিচারপতি এন ভি রমনের বেঞ্চকে গতকাল আদিত্যনাথ সরকার বলেছে, দেশের রাজধানীর বায়ুদূষণ ঠেকানোর উদ্দেশ্যে যদি আশপাশের রাজ্যগুলোর শিল্প-কারখানার ওপর বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়, তাহলে রাজ্যের দুধ প্রক্রিয়াকরণ ও চিনিশিল্পের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

উত্তর প্রদেশ সরকারের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী রণজিৎ কুমার বলেন, ‘আমরা বাতাসের ভাটির দিকে। বাতাস মূলত আসছে পাকিস্তান থেকে। কাজেই সবই যে উত্তর প্রদেশের দোষ, তা নয়।’

এই যুক্তি শুনে প্রধান বিচারপতি প্রশ্ন করেন, ‘তবে কি আপনারা পাকিস্তানের শিল্প-কারখানার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করতে বলেন?’

দিল্লিতে ক্ষমতাসীন অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টির (আপ) সরকারের দাবি, উত্তর প্রদেশ ও হরিয়ানা রাজ্যে কৃষকদের ক্ষেতের ফসলের গোড়া এবং শিল্প-কারখানার কারণে রাজধানীর বায়ু দূষিত হচ্ছে। 

দূষণ ঠেকাতে নয়াদিল্লির হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোর নির্মাণকাজের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা গতকাল তুলে নিয়েছেন প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ।

বায়ুদূষণ ঠেকানোর উপায় বের করতে গতকাল উত্তর প্রদেশ সরকারকে বায়ুমান ব্যবস্থাপনা কমিশনের (সিএকিউএম) সঙ্গে আলোচনা করার নির্দেশ দেন আদালত। সিএকিউএম আদালতে বলছে, তাদের ভ্রাম্যমাণ দল বায়ুমানের বিধি-নিষেধ মেনে চলার বিষয়টির ওপর নজরদারি করবে। দিল্লি ও আশপাশের স্কুল-কলেজ আপাতত বন্ধ থাকবে।

সিএকিউএম পরিচ্ছন্ন জ্বালানিতে চলে না আশপাশের এমন কারখানাগুলো দিনে সর্বোচ্চ আট ঘণ্টা পর্যন্ত চালু এবং ছুটির দিনে বন্ধ রাখার সুপারিশ করেছে। দূষণ নিয়ন্ত্রণে কেন্দ্রীয় ও দিল্লির রাজ্য সরকারকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ পরিকল্পনা প্রণয়নের আদেশ দিয়েছিলেন সর্বোচ্চ আদালত।

সূত্র : এনডিটিভি, আনন্দবাজার পত্রিকা।

 



সাতদিনের সেরা