kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ মাঘ ১৪২৮। ২৫ জানুয়ারি ২০২২। ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

নয়াদিল্লির বায়ুদূষণ নিয়ে শীর্ষ আদালত

২৪ ঘণ্টার মধ্যে ব্যবস্থা নিন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির বায়ুদূষণ চরমভাবে বেড়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি নেওয়া পদক্ষেপে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। গতকাল বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ এই আদালত কেন্দ্র ও সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারগুলোকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে ২৪ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছেন।

শুনানিতে প্রধান বিচারপতি এন ভি রমন বলেন, ‘আমরা বুঝতে পারছি, কোনো পরিবর্তন নেই। দূষণের মাত্রা বাড়ছেই।

বিজ্ঞাপন

শুধু সময় নষ্ট হচ্ছে। ’

ভারতের রাজধানী ও আশপাশের শহরের বায়ুদূষণ নিয়ে টানা চতুর্থ সপ্তাহের মতো আদালতে শুনানি হলো গতকাল। এদিনের শুনানিতে আদালত কেন্দ্রীয় সরকার, দিল্লি রাজ্য সরকার এবং প্রতিবেশী রাজ্যগুলোকে শিল্প-কারখানা ও যানবাহনের দূষণ রোধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ২৪ ঘণ্টা সময় বেঁধে দেন। ওই বায়ুদূষণের জন্য শিল্প-কারখানা ও যানবাহনই প্রধানত দায়ী।

গত মাসের দেওয়ালি উৎসবের পর থেকে দিল্লির বায়ুদূষণ অনেক বেড়ে যায়। প্রতিবছর এই উৎসবে পোড়ানো বিপুলসংখ্যক আতশবাজি বাতাসের মান নষ্ট হওয়ার বড় কারণ। এরপর এক মাস চলে গেলেও দূষণ কমেনি। কিছুদিন বন্ধ রাখার পর এই পরিবেশের মধ্যেই দিল্লির স্কুলগুলো আবার খুলে দেওয়া হয়।

স্কুল খোলার জন্য দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল সরকারকে কড়া ভর্ত্সনা করেন আদালত। এরপর পরিবেশমন্ত্রী গোপাল রায় পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত দিল্লির স্কুল বন্ধের ঘোষণা দেন। প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘তিন-চার বছরের বাচ্চাদের স্কুলে পাঠানো হচ্ছে আর প্রাপ্তবয়স্করা ঘরে বসে কাজ করছে। আমরা আপনার সরকার পরিচালনায় অন্য কাউকে নিয়োগ করব। ’

আদালতের তিরস্কারের পর পরিবেশমন্ত্রী বলেন, ‘বায়ুদূষণ কমে যাবে—এমন পূর্বাভাস পেয়েই স্কুল আবার খোলা হয়েছে। তবে দূূষণের মাত্রা আবার বেড়েছে। তাই আমরা শুক্রবার থেকে পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত স্কুল বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ’ 



সাতদিনের সেরা