kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

কাবুলে ফের নারী বিক্ষোভ

সাংবাদিকদের মারধর করল তালেবান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাংবাদিকদের মারধর করল তালেবান

শিক্ষাসহ বিভিন্ন অধিকারের দাবিতে কাবুলে গতকাল নারীদের বিক্ষোভ। ছবি : এএফপি

আফগানিস্তানে নারী আন্দোলনকারীদের খবর কাভার করার সময় বেশ কয়েকজন সাংবাদিকককে মারধর করেছে তালেবান। গতকাল বৃহস্পতিবার নারীদের বিক্ষোভকালে এই ঘটনা ঘটে। এ সময় এক বিদেশি সাংবাদিকও তালেবানের হামলার শিকার হন।

গতকাল নিজেদের শিক্ষা অধিকার ফিরে পাওয়ার দাবিতে কাবুলের রাস্তায় নামেন ২০ নারী। তাঁরা দেশটির শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে অর্থ মন্ত্রণালয়ের দিকে মিছিল করতে করতে এগিয়ে যান। এ সময় আপাদমস্তক কালো বোরকার পরিবর্তে তাঁদের মাথায় রংবেরঙের স্কার্ফ দেখা যায়। তাঁরা তাঁদের স্লোগানে শিক্ষাকে রাজনীতিকরণ না করার দাবি জানান। তাঁদের হাতে থাকা প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, ‘আমাদের পড়া ও কাজের অধিকার নেই’ এবং ‘বেকারত্ব, দারিদ্র্য ও ক্ষুধা’। দাবি আদায়ে নারীরা দেড় ঘণ্টা রাস্তায় অবস্থান করেন। এ সময় তালেবানরা আন্দোলনরত নারীদের কোনো বাধা দেয়নি।

তবে আন্দোলনের সংবাদ কাভার করতে যাওয়া সাংবাদিকদের আঘাত করে তালেবান। বিদেশি সাংবাদিককে রাইফেলের বাট দ্বারা আঘাত করা হয় এবং কয়েকজন মিলে তাঁকে লাথিও মারে। এদিকে সাংবাদিকরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যাওয়ার মধ্যেই আরো দুই সাংবাদিক তালেবানের হামলার শিকার হন।

আন্দোলন সংগঠকদের একজন জাহরা মোহাম্মাদি সংবাদ সংস্থা এএফপিকে বলেন, তাঁরা ঝুঁকি মাথায় নিয়েই আন্দোলনে নেমেছেন। তালেবান কাউকে শ্রদ্ধা করে না। তারা দেশি বা বিদেশি সাংবাদিক, নারী কাউকেই ছাড় দিচ্ছে না। তিনি আরো বলেন, ‘স্কুলগুলো মেয়েদের জন্য অবশ্যই খুলতে হবে। কিন্তু তালেবান আমাদের এই অধিকার কেড়ে নিয়েছে।’

জাহরা নারীদের উদ্দেশে বলেন, ‘তালেবানকে ভয় পাওয়া যাবে না। তোমাদের পরিবার বাধা দিলেও তোমরা বাইরে বের হও এবং নিজেদের অধিকার আদায়ে সোচ্চার হও।’

গত মধ্য আগস্টে তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা নেওয়ার পর থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও বেশির ভাগ কর্মস্থলে নারীর প্রবেশ নিষিদ্ধ। শুধু প্রাথমিক স্তরের মেয়েশিশুরা স্কুলে যেতে পারছে। সূত্র : এএফপি।



সাতদিনের সেরা