kalerkantho

সোমবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৯ নভেম্বর ২০২১। ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

প্যান্ডোরা ও পানামা পেপারসে পাকিস্তানিরা

ব্যবস্থা নিতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আলোচিত প্যান্ডোরা পেপারসে নাম থাকা পাকিস্তানি নাগরিকরা সত্যিই অনিয়মের মাধ্যমে বিদেশে অর্থ পাচার করেছেন কি না তা তদন্ত করার জন্য রাজস্ব ব্যুরোকে নির্দেশ দিতে দেশটির সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানানো হয়েছে। দুর্নীতিবিরোধী সংগঠন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল পাকিস্তান (টিআইপি) আদালতে ওই আবেদন করেছে।

টিআইপির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইদ আদিল গিলানির পক্ষে স্থানীয় আইনজীবী হাশমত হাবিব শীর্ষ আদালতে আবেদন দাখিল করেন। এতে সম্প্রতি প্যান্ডোরা এবং কিছুদিন আগের পানামা পেপারস নামের দলিলপত্রে যাঁদের নাম এসেছে অফশোর কম্পানিতে তাঁদের অর্থ বৈধভাবে পাঠানো হয়েছে কি না, সে বিষয়ে রাজস্ব বোর্ডকে ব্যাখ্যা দিতে আদালতের নির্দেশনা চাওয়া হয়। পাশাপাশি তালিকায় থাকা ব্যক্তিদের কাছে তথ্য-প্রমাণসহ ব্যাখ্যা চাওয়ার জন্যও অনুরোধ করা হয়।   

আবেদনে বলা হয়, জাতিসংঘের দুর্নীতিবিরোধী কনভেনশনের (ইউএনসিএসি) সুপারিশকৃত লুণ্ঠিত সম্পদ পুনরুদ্ধারমূলক পদক্ষেপ অনুযায়ী পাকিস্তানি নাগরিকদের বিদেশে থাকা সম্পদের বৈধতা প্রমাণ করতে না পারলে তিন মাসের মধ্যে সেসবের লেনদেন স্থগিত করার পাশাপাশি তা পুনরুদ্ধারে আইনি প্রক্রিয়া শুরু করা উচিত। ২০০৭ সালে পাকিস্তান জাতিসংঘের ওই সুপারিশকে সমর্থন জানিয়েছিল।

আবেদনে ২০১৮ সালে ঘোষণা করা সব বিদেশি সম্পদ যে অবৈধ উপায়ে অর্জিত নয় তা কেন্দ্রীয় রাজস্ব ব্যুরোকে (এফবিআর) নিশ্চিত করার জন্য আর্জি জানানো হয়।  

পাকিস্তানের মন্ত্রিসভার শীর্ষস্থানীয় সদস্য, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব, সেনা কর্মকর্তাদের আত্মীয় ও প্রভাবশালী ব্যবসায়ীসহ দেশটির অভিজাত ব্যক্তিদের নাম রয়েছে প্যান্ডোরা পেপারসে। বহু দলিলে দাবি করা হয়েছে যে শত শত পাকিস্তানি গোপনে তাঁদের সম্পদ পাচার করেছেন। তাঁদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের মন্ত্রিসভার অন্তত দুজন সদস্যও রয়েছেন।

পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, প্যান্ডোরা পেপারসে দেশটির ৭০০ এরও বেশি ব্যক্তির নাম উল্লেখ করা হয়েছে। ফাঁস হওয়া এ তথ্য অনুযায়ী, অর্থমন্ত্রী শওকত তারিন এবং তাঁর পরিবারের সদস্যরা চারটি অফশোর কম্পানির মালিক। এ ছাড়া এতে রয়েছে পানিসম্পদমন্ত্রী চৌধুরী মুনিস এলাহির নাম।

প্যান্ডোরা পেপারস এ পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে বড় গোপন দলিল ফাঁস হওয়ার ঘটনা। এতে বিভিন্ন দেশের রাজনৈতিক নেতা ও ব্যবসায়ী ছাড়াও বিভিন্ন ক্ষেত্রের অনেক খ্যাতিমান ব্যক্তিত্ব ও তারকার সম্পদ পাচারের ঘটনা বেরিয়ে এসেছে।

এর আওতায় বিবিসি প্যানোরামা, ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান এবং আরো কিছু মিডিয়া অংশীদার মিলে বিশ্বের ১৪টি কম্পানির এক কোটি ২০ লাখ দলিলপত্র হাতে পেয়েছে। এর আগের ফাঁস হওয়া দলিলপত্রগুলোর মধ্যে ছিল প্যারাডাইস পেপারস ও পানামা পেপারস। সূত্র : ডন।



সাতদিনের সেরা