kalerkantho

সোমবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৯ নভেম্বর ২০২১। ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

সুদানে সেনা শাসনের দাবিতে বিক্ষোভ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সুদানে সেনা শাসনের দাবিতে বিক্ষোভ

সুদানের রাজধানী খার্তুমে গতকালও কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী অবস্থান ধর্মঘট ও সমাবেশ করে। ছবি : এএফপি

সুদানে সেনা শাসনের দাবিতে গত শনিবার রাজধানী খার্তুমে প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের সামনে বিক্ষোভ করেছে কয়েক হাজার মানুষ। গতকালও কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী অবস্থান ধর্মঘট ও সমাবেশ করে

ফোর্সেস অব ফ্রিডম অ্যান্ড চেঞ্জ (এফএফসি) শীর্ষক সামরিক-বেসামরিক জোটের দেশ শাসনকালে ঘনিয়ে ওঠা রাজনৈতিক সংকটের মধ্যে সেনাপন্থী মানুষ গত শনিবার রাজধানীতে বিক্ষোভ করে। দীর্ঘদিনের প্রেসিডেন্ট ওমর আল বশিরকে উত্খাতের পর থেকে দেশ পরিচালনা করছে এফএফসি। সামরিক বাহিনী ও বেসামরিক গোষ্ঠীগুলোর ভেতর নড়বড়ে এক ক্ষমতা ভাগাভাগির চুক্তির মধ্য দিয়ে দেশ শাসন করছে এফএফসি শীর্ষক ওই অন্তর্বর্তীকালীন সরকার।

গত সেপ্টেম্বরে বশিরপন্থী সেনাদের ব্যর্থ এক অভ্যুত্থানচেষ্টার পর থেকে সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এফএফসির সংস্কার ও মন্ত্রিসভায় রদবদলের দাবি জানিয়ে আসছিলেন। এসব দাবিকে সামরিক নেতাদের ক্ষমতা দখলের উচ্চাকাঙ্ক্ষা হিসেবে দেখেন বেসামরিক নেতারা। উভয় পক্ষের টানাপড়েনের মধ্যে এফএফসি জোটের সেনাপন্থী একটি অংশই গত শনিবারের বিক্ষোভের ডাক দেয়। তারা প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের কাছে একটি কনভেনশন হলে সংক্ষিপ্ত একটি অনুষ্ঠানও করে।

এদিন বিক্ষোভকারীরা ‘ভুখা সরকারের পতনের’ দাবিতে স্লোগান দেয় এবং সশস্ত্র বাহিনী ও সুদানের যৌথ সামরিক-বেসামরিক সার্বভৌম পরিষদের প্রধান জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ অল-বুরহানকে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে বর্তমান সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার আহবান জানায়। বিক্ষোভের সময় পুলিশের উপস্থিতি কম দেখা গেছে। ফলে অন্যান্য সময় না পারলেও এদিন বিক্ষোভকারীরা তুলনামূলকভাবে সহজেই প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের ফটকগুলোর কাছে চলে যায়।

কয়েক ডজন বাসে চেপে খার্তুমের কেন্দ্রস্থলে আসা এ বিক্ষোভকারীরা বেসামরিক নেতৃত্বের পক্ষে থাকা বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষেও জড়ায়।

সেনাপন্থীদের গত শনিবারের বিক্ষোভের পরিপ্রেক্ষিতে দেশটির বেসামরিক শাসনপন্থী গোষ্ঠীগুলো আগামী বৃহস্পতিবার বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে।

শনিবারের বিক্ষোভের ব্যাপারে খার্তুম রাজ্যের গভর্নর আয়মান খালিদ এক বিবৃতিতে জানান, প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের সামনে বিক্ষোভের আগে অজ্ঞাত একটি সশস্ত্র গোষ্ঠী বিভিন্ন সরকারি ভবনের আশপাশ থেকে নিরাপত্তা ব্যারিকেডগুলো সরিয়ে নেয় এবং পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীগুলোকে প্রস্তুতি নেওয়া থেকে বিরত রাখে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, সুদানে চলমান রাজনৈতিক সংকটের মূলে রয়েছে বশিরের শাসনামলের অর্থনৈতিক কাঠামো গুঁড়িয়ে দেওয়া, সামরিক বাহিনীতে সংস্কার ও বিচারব্যবস্থা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়।

গত শুক্রবার এক বত্তৃদ্ধতায় দেশটির বেসামরিক প্রধানমন্ত্রী আবদাল্লা হামদক চলমান রাজনৈতিক সংকট থেকে উত্তরণে একটি রোডম্যাপ দেন এবং সমাধানে পৌঁছতে ব্যর্থ হলে তা দেশের ভবিষ্যেক ভয়াবহ অনিশ্চয়তার দিকে ঠেলে দেবে বলে সতর্ক করেন।

সূত্র : এএফপি, বিবিসি।



সাতদিনের সেরা