kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ কার্তিক ১৪২৮। ২৮ অক্টোবর ২০২১। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

গুলাবের আঘাতে ভারতে দুই মৃত্যু

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঘূর্ণিঝড় গুলাব গতকাল সোমবার নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এর আগে গত রবিবার সন্ধ্যায় ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ ও ওড়িশার উপকূলবর্তী এলাকায় আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড়টি। এর তাণ্ডবে অন্ধ্র প্রদেশের শ্রীকাকুলামে নৌকা উল্টে দুই জেলে মারা গেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শ্রীকাকুলামে ঢেউয়ের দাপটে জেলেদের একটি নৌকা উল্টে যায়। এতে ছয় জেলে সমুদ্রে পড়ে যান। তিনজন সাঁতরে পারে আসতে পারলেও মারা যান দুজন। নিখোঁজ আছেন একজন।

এদিকে গুলাবের প্রভাবে গতকাল দুপুর পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় অন্ধ্র প্রদেশের বিশাখাপত্নমে বৃষ্টি হয়েছে ২৮২ মিলিমিটার। এর আগে কখনো সেপ্টেম্বরে বন্দর শহরটিতে এত বেশি বৃষ্টি হয়নি। ২০১৬ সালে আরেকটি ঘূর্ণিঝর কলিঙ্গপত্নমের কাছে উপকূল অতিক্রম করেছিল। এরও গতিপথ ছিল গুলাবের মতোই। ওই বছর ২০ সেপ্টেম্বর বিশাখাপত্নমে বৃষ্টি হয়েছিল ১৯৪ মিলিমিটার।

ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েক জানিয়েছেন, উপকূলবর্তী সাতটি জেলা থেকে হাজার হাজার মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরানো হয়েছে। গঞ্জাম, গজপতি, কান্ধামাল, কোরাপুট, রায়াগড়, মালকানগিরি, নবরংপুরু—এই সাতটি জেলায় সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলে ঘূর্ণিঝড়। সেখানকার অধিবাসীদের আপাতত ত্রাণশিবিরে রাখা হয়েছে।

ভারতের আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, গতকাল সোমবার সকালে গুলাব গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। তখন এর গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৫১ থেকে ৬১ কিলোমিটার। এদিন সকাল সাড়ে ৮টা নাগাদ নিম্নচাপটি কলিঙ্গপত্নমের ৬৫ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে ছত্তিশগড়ের জগদলপুরে অবস্থান করছিল। গতকাল সন্ধ্যায় নিম্নচাপটি আরো দুর্বল হয়ে পড়ে। তখন এর গতিবেগ দাঁড়ায় ঘণ্টায় ৩১ থেকে ৫১ কিলোমিটার। আগামী ২৪ ঘণ্টায় ভারি থেকে অতিভারি বৃষ্টি হতে পারে অন্ধ্র প্রদেশ, ছত্তিশগড়, তেলেঙ্গানা ও মহারাষ্ট্রের বিদর্ভ অঞ্চল। শ্রীকাকুলাম, ভিজিয়ানগরম ও নিজামাবাদে অতিভারি বৃষ্টির আশঙ্কায় রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। গোদাবরী, কৃষ্ণা, কোরাপুট, দান্তেওয়াড়া, বিজাপুর, বস্তার, কানকের, ওয়ারঙ্গল ও রঙ্গারেড্ডি জেলার শহরাঞ্চলের জন্য জারি করা হয়েছে অরেঞ্জ অ্যালার্ট। বৃষ্টির সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া বইবে উপকূলের জেলাগুলোতে।

গুলাবের প্রভাবে আগামীকাল বুধবার কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, ঝাড়গ্রাম, উত্তর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা, বাঁকুড়া, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে অতিভারি বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকায় ইয়েলো অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা ও পূর্ব মেদিনীপুরে ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা থেকে সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইবে। সূত্র : দ্য ওয়াল, আনন্দবাজার।



সাতদিনের সেরা