kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ কার্তিক ১৪২৮। ২৮ অক্টোবর ২০২১। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সংক্ষিপ্ত

‘অমানবিকতার’ প্রতিবাদে মার্কিন দূতের পদত্যাগ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অভিবাসীদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের আচরণ অমানবিক—এমন অভিযোগে পদত্যাগ করেছেন হাইতিতে নিযুক্ত বিশেষ মার্কিন দূত ড্যানিয়েল ফুট। যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের সীমান্তবর্তী এক শহর থেকে হাইতির নাগরিকদের ফেরত পাঠানোর প্রতিবাদে ফুট পদত্যাগ করেন। গত বৃহস্পতিবার মার্কিন পররাষ্ট্র বিভাগের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা ফুটের পদত্যাগের কথা নিশ্চিত করেন। পদত্যাগপত্রে ফুট বলেন, ভূমিকম্প-পরবর্তী পরিস্থিতি এবং রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা থেকে বাঁচতে যুক্তরাষ্ট্রে পালিয়ে আসা হাইতির নাগরিকদের ফেরত পাঠানো ‘অমানবিক’। যুক্তরাষ্ট্রের হাইতিসংক্রান্ত নীতি খুবই ত্রুটিপূর্ণ উল্লেখ করে ফুট বলেন, হাইতির নাগরিকদের ব্যাপারে তাঁর সুপারিশ আমলে নেওয়া হয়নি এবং তা উপেক্ষা করা হয়েছে। গত বুধবার বিমানে করে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বহু অভিবাসীকে ফেরত পাঠানো হয়। গত বৃহস্পতিবারও দেখা যায় একই চিত্র। যুক্তরাষ্ট্রসংলগ্ন উত্তর মেক্সিকোর এক এলাকায় হাইতির নাগরিকদের অভিবাসন ক্যাম্পে কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা প্রবেশ করলে তাদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়। পুলিশ কর্মকর্তারা মেক্সিকোর সিউদাদ একিউনা ক্যাম্পে ঢুকে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের অনুরোধ জানান, যারা যে দেশে শরণার্থী হিসেবে আবেদন করেছে সেসব দেশেই তারা যেন চলে যায়। অভিবাসনপ্রত্যাশীদের অনেককে গুয়াতেমালা সীমান্তের কাছে দক্ষিণ মেক্সিকো সিটির তাপাচুলায় জোর করে ফেরত পাঠানো হতে পারে। অথচ এরই মধ্যে সেখানে হাজার হাজার অভিবাসনপ্রত্যাশী অপেক্ষমাণ। তারা অনুমোদনপত্রের আশায় বসে আছে। এ অবস্থায় এক হাইতিয়ান নাম প্রকাশ না করে বলেন, ‘আমরা তাপাচুলায় ফেরত যেতে চাই না। আমরা তো এখানেই কষ্ট পাচ্ছি, চত্বর অথবা রাস্তায় ঘুমাতে হচ্ছে আমাদের।’ ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের কেলিক্সিও সীমান্তের মরুভূমিতেও অপেক্ষমাণ আছে অনেকে। এর মধ্যে ফিটারসন জেভিয়ার ও তাঁর পরিবারও রয়েছে। ২০১৪ সালের ২৬ আগস্ট তাঁরা দেশ ছাড়েন। এর মধ্যে তাঁরা কয়েক বছর ব্রাজিলে ছিলেন। সূত্র : বিবিসি, এএফপি ও রয়টার্স।



সাতদিনের সেরা