kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ আশ্বিন ১৪২৮। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৫ সফর ১৪৪৩

টিকা নিয়ে অসমতা

আপাতত বুস্টার ডোজ নয় : ডাব্লিউএইচও

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৬ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আপাতত বুস্টার ডোজ নয় : ডাব্লিউএইচও

করোনা টিকার বুস্টার ডোজ অন্তত আগামী সেপ্টেম্বরের শেষ নাগাদ পর্যন্ত স্থগিত রাখার আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও)। ধনী ও দরিদ্র দেশগুলোর মধ্যে টিকার তীব্র অসমতা কমাতে গত বুধবার এই আহ্বান জানানো হয়।

জাতিসংঘের স্বাস্থ্যবিষয়ক সংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রিয়েসাস টিকা সরবরাহকারী দেশ ও কম্পানিগুলোর প্রতি অবিলম্বে বুস্টার ডোজের উদ্যোগের পরিবর্তে দরিদ্র দেশগুলোকে অগ্রাধিকার দেওয়ার ওপর জোর দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, বুস্টার ডোজ স্থগিত রাখলে এই সময়ের মধ্যে প্রতিটি দেশের অন্তত ১০ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়া সম্ভব হবে।

ইসরাইল, জার্মানিসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ নিজেদের নাগরিকদের মধ্যে করোনার টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে, কিন্তু টেড্রোস সতর্ক করে বলেছেন, এতে গরিব দেশগুলো টিকাদানের বাইরে থেকে যাবে। এখন টিকা সরবরাহের পরিস্থিতি বিপরীতমুখী হওয়া উচিত। টিকার বেশির ভাগ নিম্ন আয়ের দেশগুলোতে সরবরাহ করা দরকার।

তিনি আরো বলেন, ‘করোনার ডেল্টা ধরন থেকে নিজ দেশের জনগণকে বাঁচাতে সব সরকারের উদ্বেগের বিষয়টি আমি বুঝি, কিন্তু আমরা ওই সব দেশকে মেনে নিতে পারি না, যারা এরই মধ্যে টিকার বৈশ্বিক সরবরাহের বেশির ভাগই ব্যবহার করেছে।’

ডাব্লিউএইচওর তথ্য মতে, উন্নত দেশগুলোতে টিকাদানের হার অনেক বেশি হলেও নিম্ন আয়ের দেশগুলোতে এখন পর্যন্ত প্রতি ১০০ জনের মধ্যে মাত্র দেড়জনকে টিকা দেওয়া সম্ভব হয়েছে। টিকা সরবরাহে ঘাটতি থাকায় দেশগুলো টিকা দিতে পারছে না।

টিকাদানের ক্ষেত্রে ধনী ও গরিব দেশগুলোর মধ্যে ব্যবধান কমিয়ে আনার সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ডাব্লিউএইচও। জাতিসংঘের এই সংস্থাটি আগামী মাসের মধ্যে প্রতিটি দেশের অন্তত ১০ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে, কিন্তু টিকাদানের বর্তমান যে অবস্থা তাতে ওই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ না হওয়ার আশঙ্কাই বেশি। এ পরিস্থিতিতে সংস্থাপ্রধান সবার, বিশেষ করে যেসব দেশ ও কম্পানি টিকা সরবরাহ নিয়ন্ত্রণ করছে তাদের সহযোগিতা চান।

ভারতে নতুন আক্রান্ত ৪২ হাজার ৯৮২

ভারতে এক দিনে নতুন করে ৪২ হাজার ৯৮২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে তিন কোটি ১৮ লাখ ১২ হাজার ১১৪ জনে। ভারতে বর্তমানে করোনায় অসুস্থ লোকের সংখ্যা চার লাখ ১১ হাজার ৭৬ জন, যা মোট সংক্রমণের ১.২৯ শতাংশ। দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় গতকাল এ তথ্য জানিয়েছে।

করোনায় নতুন করে ৫৩৩ জন মারা যাওয়ায় মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে চার লাখ ২৬ হাজার ২৯০ জনে। ভারতে করোনায় সুস্থতার হার বর্তমানে ৯৭.৩৭ শতাংশ।

ছয় মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ সংক্রমণ দেখল যুক্তরাষ্ট্র

গত ছয় মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ সংক্রমণ দেখল যুক্তরাষ্ট্র। এক দিনেই দেশটিতে নতুন করে এক লাখের বেশি সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে বলে রয়টার্সের এক পরিসংখ্যানে উঠে এসেছে। যেসব এলাকায় লোকজন ভ্যাকসিন নেয়নি সেখানে ডেল্টা ভেরিয়েন্ট দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে। ফলে সংক্রমণ আশঙ্কাজনকহারে বাড়তে শুরু করেছে।

করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে এখন পর্যন্ত বিশ্বে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে তিন কোটি ৬১ লাখ ৭৬ হাজার ৪৭১ জনের। এদের মধ্যে মারা গেছে ছয় লাখ ৩১ হাজার ২৯৯ জন। আর সুস্থ হয়েছে দুই কোটি ৯৭ লাখ ৮৭ হাজার ৩১৬ জন। সাত দিন ধরে যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিনই ৯৪ হাজারের বেশি সংক্রমণ শনাক্ত হচ্ছে। সূত্র : এএফপি, রয়টার্স।



সাতদিনের সেরা