kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ আশ্বিন ১৪২৮। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৫ সফর ১৪৪৩

সংক্ষিপ্ত

হংকংয়ে একজনের ৯ বছরের কারাদণ্ড

বিতর্কিত নিরাপত্তা আইন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩১ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চীনের স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হংকংয়ে বিতর্কিত জাতীয় নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার তং ইং-কিটকে (২৪) ৯ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল শুক্রবার প্রথমবারের মতো কোনো ব্যক্তিকে এ আইনের আওতায় সাজা দিলেন আদালত। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও বিচ্ছিন্নতাবাদ উসকে দেওয়ার দায়ে তংকে এ কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে বলে বিচারকরা জানান। গত বছরের জুলাইয়ে তং সড়কে থাকা একদল পুলিশ কর্মকর্তার ওপর তাঁর মোটরসাইকেল তুলে দেন। সে সময় তাঁর কাছে ‘হংকংকে স্বাধীন করাই আমাদের সময়ের বিপ্লব’ লেখা একটি কালো রঙের পতাকা ছিল। তখন তাঁকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। মামলার শুনানিতে তংকে কমপক্ষে তিন বছরের মাজা দেওয়ার আবেদন করেন রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি। তংয়ের আইনজীবীরা তাঁর সাজা যেন ১০ বছরের বেশি না হয়, বিচারকদের কাছে এমন আবেদন জানান। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে বিচারকরা তংকে সর্বোচ্চ ৯ বছরের কারাদণ্ড দেন। সংশ্লিষ্ট মামলার বিচারিক কার্যক্রম শেষে গত মঙ্গলবার তংকে দোষী সাব্যস্ত করে রায় দেন তিন বিচারকের এক প্যানেল। হংকং ও চীনের মূল ভূখণ্ডের সরকারের কাজে বাধাদান এবং জনগণকে আতঙ্কিত করার লক্ষ্যে তং সহিংস আচরণ করেছেন বলে তাঁরা মন্তব্য করেন। রায়ে বলা হয়, বিচ্ছিন্নতাবাদীদের উসকানি দেওয়ার লক্ষ্যে তিনি ওই পতাকা বহন করছিলেন। গত মঙ্গলবারের রায়ে এসব মন্তব্য করে তংকে দোষী সাব্যস্ত করা হলেও সাজা ঘোষণা করা হয়নি। এ মামলার রায় ঘোষণা করার জন্য তিন বিচারককে বাছাই করেন হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি ল্যাম।  গত বছর থেকে হংকংয়ে বিতর্কিত নিরাপত্তা আইন কার্যকর করে বেইজিং। আইন কার্যকরের পর এখন পর্যন্ত বিতর্কিত এই আইনের আওতায় হংকংয়ের শতাধিক বাসিন্দাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ আইনে দোষীদের সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা দেওয়ার বিধান রাখা হয়েছে।  সমালোচকদের মতে, বিতর্কিত আইনটির মাধ্যমে হংকংয়ের স্বায়ত্তশাসন লঙ্ঘনের পাশাপাশি গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনকারীদের সাজা দেওয়ার পথ সুগম হয়েছে। তবে বেইজিংয়ের দাবি, শহরটির স্থিতিশীলতা বজায় রাখতেই এ আইন প্রয়োগ করা হচ্ছে।  গত মাসেই হংকংয়ের গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনের পক্ষে প্রতিবেদন প্রকাশ করে আসা জনপ্রিয় ট্যাবলয়েড পত্রিকা অ্যাপল ডেইলি সরকারের চাপে কার্যক্রম বন্ধ করতে বাধ্য হয়। গণমাধ্যমটির বেশ কয়েকজন সাংবাদিক ও কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। অ্যাপল ডেইলির মালিক জিমি লাইকে জাতীয় নিরাপত্তা আইনের আওতায় বিদেশিদের সঙ্গে যোগসাজশের অভিযোগে ২০ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।



সাতদিনের সেরা