kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ আশ্বিন ১৪২৮। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৫ সফর ১৪৪৩

পেগাসাস নিয়ে ভারতের পার্লামেন্ট ফের উত্তাল

সাসপেন্ড হতে পারেন লোকসভার ৯ সাংসদ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৯ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পেগাসাসকাণ্ড নিয়ে ফের উত্তাল ভারতের পার্লামেন্ট। ফোনে আড়ি পাতা, নয়া কৃষি আইন, মূল্যবৃদ্ধি ইত্যাদি একাধিক বিষয় নিয়ে বিরোধীদের আলোচনার দাবিতে পার্লামেন্টের দুই কক্ষে কার্যত অচলাবস্থা অব্যাহত রয়েছে। স্পিকারের প্রতি অভব্য আচরণ এব?ং তাঁর দিকে বিবৃতির কাগজ উড়িয়ে হৈ-হট্টগোলের অভিযোগে সাসপেন্ড করা হতে পারে লোকসভার ৯ জন সদস্যকে।

সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, যে ৯ জন সাংসদকে সাসপেন্ড করা হতে পারে, তাঁদের মধ্যে রয়েছেন গুরজিৎ সিং অজলা, টি এন প্রথাপন, মনিকাম ঠাকুর, রবনীত সিং বিট্টু, হিবি ইডেন, জোথিমানি, সেন্নিমালাই, সপ্তগিরি শঙ্কর উলাকা, ভি বৈথিলিঙ্গম, এ এম আরিফ।

বিরোধী সাংসদদের হৈ-হট্টগোলের জেরে গতকাল বুধবারও দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত লোকসভা এবং বিকেল পৌনে ৩টা পর্যন্ত রাজ্যসভার অধিবেশন স্থগিত রাখা হয়। রাজ্যসভার অধিবেশন নিয়ে গুরুতর অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূলের রাজ্যসভা সাংসদ ডেরেক ওব্রায়েন। বিষয়টিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ‘মাস্টারস্ট্রোক’ আখ্যা দিয়ে টুইটারে তিনি লেখেন, ‘সংসদের উচ্চকক্ষে ১৫টি বিরোধী দলের প্রায় ১০০ জন সাংসদের বক্তব্য কাটছাঁট করে সম্প্রচার করা হচ্ছে রাজ্যসভা টিভিতে।’

রাজ্যসভায় বিরোধীদের চিৎকার-চেঁচামেচির বিরোধিতা করে ডেপুটি চেয়ারম্যান হরিবংশ নারায়ণ সিং বলেন, ‘মাস্ক না পরে এটা কী ধরনের ব্যবহার আপনাদের? অন্তত কভিড বিধি মেনে চলুন।’ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর বিরোধীদের উদ্দেশে বলেন, ‘কংগ্রেস ও তৃণমূল সাংসদরা সংসদের কাজে বাধা দিচ্ছেন। তাঁরা প্রতিবাদ দেখাতেই পারেন, কিন্তু এর একটা সীমা রয়েছে। তাঁরা স্পিকার, মন্ত্রীদের দিকে কাগজ ছুড়ে দিচ্ছেন। আলোচনা না করে বিরোধীরা পালাচ্ছেন কেন?’ সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।



সাতদিনের সেরা