kalerkantho

রবিবার । ১০ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৫ জুলাই ২০২১। ১৪ জিলহজ ১৪৪২

রাহুল প্রশান্ত অভিষেকের ফোনেও নজরদারি

পার্লামেন্টে শোরগোল

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২০ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পার্লামেন্টে শোরগোল

ইসরায়েলের একটি সংস্থার তৈরি ‘পেগাসাস’ স্পাইওয়্যার ব্যবহার করে ভারতে যেসব রাজনীতিক ও বিশিষ্ট ব্যক্তির মোবাইল ফোনে আড়ি পাতা হয়, সেই তালিকার সবার ওপরে রয়েছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তালিকায় রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাইপো এবং তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও ভোটকৌশলী প্রশান্ত কিশোরের নাম। শুধু তা-ই নয়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দুই মন্ত্রীর ফোনেও আড়ি পাতা হয়েছিল। তাঁদের মধ্যে একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রহ্লাদ প্যাটেল। অন্যজন বর্তমান তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব। ২০১৮-১৯ সালের ওই সময়টায় তিনি বিজেপির সাংসদ ছিলেন। তখনো মন্ত্রী হননি। আড়ি পাতা হয়েছিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ছেলে জয় শাহের ব্যবসাসংক্রান্ত বিষয় নিয়ে তদন্ত করেছিলেন যে সাংবাদিক, তিনিসহ অন্তত ৪০ জন সাংবাদিকের ফোনেও।

সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থা ‘দ্য ওয়্যার’-এক প্রতিবেদনে ঘটনাটি প্রকাশ পায়। ওই ঘটনা নিয়ে গতকাল সোমবার ভারতের পার্লামেন্টে বেশ শোরগোল হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাবেক নির্বাচন কমিশনার অশোক লাভাসার মোবাইলেই আড়ি পাতা হয়েছিল। এই লাভাসা প্রকাশ্যে মোদি-শাহর বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন। প্রচারে বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য তাঁদের ক্লিনচিট দেওয়ার বিরোধিতা করেছিলেন।

এই পেগাসাস স্পাইওয়্যার বিক্রি করে ইসরায়েলি সংস্থা এনএসও। তারা সব অভিযোগ উড়িয়ে বিবৃতি দিয়েছে। জানিয়েছে, রিপোর্টে যা বলা হয়েছে, সব ভিত্তিহীন। মনগড়া তত্ত্বের ওপর নির্ভর করে এই রিপোর্ট তৈরি। রিপোর্টে বলা হয়েছে অসমর্থিত সূত্র থেকে তথ্য পেয়েছে তারা। এই তথ্য বাস্তব থেকে অনেক দূরে। সব অভিযোগ খতিয়ে দেখে আমরা জোর দিয়ে বলতে পারি, মিথ্যা অভিযোগ করা হচ্ছে। তারা যে অভিযোগ তুলছে, তার পক্ষে কোনো প্রমাণ দেখাতে পারছে না। এই অভিযোগ বাস্তব থেকে এতটাই দূরে যে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ভাবছে এনএসও।

মোদি সরকারও হ্যাক করার কথা অস্বীকার করেছে। জানিয়েছে, এ অভিযোগ ‘ভিত্তিহীন, সত্য নয়’?। তবে পেগাসাস স্পাইওয়্যার কেনা বা ব্যবহারের কথা স্পষ্টভাবে অস্বীকার করেনি কেন্দ্র। সূত্র : এনডিটিভি।



সাতদিনের সেরা