kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ আশ্বিন ১৪২৮। ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৩ সফর ১৪৪৩

কানাডায় ৫০০ মৃত্যুর জন্য দাবদাহই দায়ী!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দাবদাহের মধ্যে কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়ায় মৃত্যুর হার অস্বাভাবিক বেড়ে গেছে। আঘাত হেনেছে দাবানলও। পরিস্থিতি সামলাতে সেখানে সেনা পাঠানোর প্রস্তুতি নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

রেকর্ড ভাঙা তাপমাত্রায় চরম ভোগান্তিতে রয়েছে কানাডার সাধারণ মানুষ। চলতি সপ্তাহে দেশটিতে ৪৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। বিশেষ করে মধ্য কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার পরিস্থিতি নাজুক। প্রাদেশিক সরকারপ্রধান লিসা লাপয়েন্তে শুক্রবার দেশটির বাসিন্দাদের বলেন, ‘অনুগ্রহ করে পরিবার, বন্ধুবান্ধব, প্রতিবেশী, বিশেষ করে যাঁরা একা থাকেন তাঁদের খোঁজ নিন।’ তীব্র দাবদাহে ওই প্রদেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭১৯ জনে। বছরের এ সময় কানাডার ওই অঞ্চলে সাধারণত যত মানুষের মৃত্যু হয়, তার চেয়ে এবার তিন গুণ বেশি মানুষ মারা গেছে। এই বাড়তি মৃত্যু দাবদাহের কারণেই ঘটেছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

‘হিট ডোম’-এর প্রভাবে কানাডার ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। বায়ুমণ্ডলে সাগরের উষ্ণ বায়ু আটকে পড়লে যে উচ্চচাপ তৈরি হয় তাকে হিট ডোম বলা হয়। মারাত্মক এই দাবদাহের কারণে সেখানকার শত শত মানুষের মৃত্যুর কথা জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। এ অবস্থায় নাগরিকদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছে সরকার।

দাবদাহের মধ্যেই যুক্ত হয়েছে দাবানল। এতে ঝুঁকিতে পড়েছে বহু মানুষ। কলাম্বিয়ার ফায়ার সার্ভিস প্রায় ১৫০টি দাবানলের কথা জানিয়েছে। এরই মধ্যে পুড়ে গেছে অনেক জায়গায়। সেখানকার ফায়ার সার্ভিসের মুখপাত্র এরিক বার্গ জানিয়েছেন, দাবানল নতুন নতুন জায়গায় দেখা দিচ্ছে। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে প্রায় এক হাজার মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

তীব্র দাবদাহ থেকে সৃষ্ট দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনতে এবং শহরগুলো থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নিতে সেনাবাহিনীর উড়োজাহাজসহ নানা সহায়তা প্রস্তুত রেখেছে দেশটির সরকার। স্থানীয় সময় শুক্রবার কানাডা এ প্রস্তুতি শেষ করে।

দেশটির দাবানল নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ব্রিটিশ কলাম্বিয়া প্রদেশে কমপক্ষে ১৫০টি দাবানল সক্রিয় রয়েছে। এর মধ্যে ৭৭টি সৃষ্টি হয়েছে গত দুই দিনে। দাবানলগুলোর বেশির ভাগের সূত্রপাত হয়েছে বজ পাত থেকে।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো জানান, তিনি এরই মধ্যে ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোর বিভিন্ন দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। সূত্র : এএফপি, বিবিসি।



সাতদিনের সেরা