kalerkantho

রবিবার । ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮। ১ আগস্ট ২০২১। ২১ জিলহজ ১৪৪২

ভারতে তৃতীয় ঢেউয়ে দৈনিক সংক্রমণ হতে পারে পাঁচ লাখ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৪ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভারতে তৃতীয় ঢেউয়ে দৈনিক সংক্রমণ হতে পারে পাঁচ লাখ

আগামী সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউ ভয়াবহ রূপ নিতে পারে। দৈনিক সংক্রমণ পৌঁছে যেতে পারে পাঁচ লাখে। এমন আশঙ্কার কথা জানিয়েছে কানপুরের ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (আইআইটি)। সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানটি করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের সময়কাল নিয়ে এক গবেষণা চালিয়ে এই আশঙ্কার কথা জানিয়েছে।

এই গবেষণার ফলে বলা হয়েছে, করোনার নতুন প্রজাতি আরো সংক্রামক রূপ নেবে। সেপ্টেম্বরে চরমে পৌঁছাবে তৃতীয় ঢেউ। তখন দৈনিক সংক্রমণ পৌঁছতে পারে পাঁচ লাখে। অক্টোবরে ভারতে তৃতীয় ঢেউয়ের প্রভাব সর্বোচ্চ অবস্থায় পৌঁছাবে। দ্বিতীয় ঢেউয়ের চেয়ে এর ভয়াবহতা কিছুটা কম হবে। তখন দৈনিক সংক্রমণ হতে পারে তিন লাখ ২০ লাখ পর্যন্ত। অক্টোবরের শেষে দৈনিক সংক্রমণ দুই লাখের আশপাশে থাকবে।

আইআইটি কানপুরের দুই অধ্যাপক রাজেশ রঞ্জন ও মহেন্দ্র ভার্মার নেতৃত্বে যে গবেষকরা এই প্রতিবেদনটি তৈরি করেছেন তাঁরা বলেছেন, ‘টিকাদানের বিষয়টিকে গবেষণায় গ্রাহ্য করা হয়নি। টিকাদানের হার বাড়লে অবশ্যই তৃতীয় ঢেউয়ের ভয়াবহতা কমবে। টিকাদানের হার কেমন হলে, তৃতীয় ঢেউ কোথায় পৌঁছাবে, তা নিয়ে আরো গবেষণা চলছে।’

যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্রসহ ৯ দেশে ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্ট

করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ জোরশোরে টিকাদান কর্মসূচি জারি রাখলেও ডেল্টা প্লাস নামের নতুন একটি ভেরিয়েন্ট আলোচনায় চলে এসেছে। ভারতে প্রথম শনাক্ত হওয়া উচ্চ সংক্রমণশীল ডেল্টা ভেরিয়েন্টের সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য পদক্ষেপ নিলেও অন্তত ৯টি দেশে ধরন পাল্টানো ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্ট শনাক্ত হয়েছে।

ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্টের নাম বি.১.৬১৭.২.১। এখন পর্যন্ত ভেরিয়েন্টটির বিস্তারিত অনেক কিছুই জানা যায়নি। কিন্তু যে উল্লেখযোগ্য তথ্য পাওয়া গেছে তা হলো, এই নতুন স্ট্রেইনটি মনোকলোনাল অ্যান্টিবডি ককটেল প্রতিরোধী। গত মঙ্গলবার ভারতে ডেল্টা প্লাস ভেরিয়েন্টে অন্তত ২২ জন আক্রান্ত বলে জানিয়েছে। ভারত সরকার এটিকে ভেরিয়েন্ট অব ইন্টারেস্ট ঘোষণা করেছে। ডেল্টা ভেরিয়েন্ট থেকে পরিবর্তিত হওয়া ডেল্টা প্লাসকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ভেরিয়েন্ট অব কনসার্ন বলে তালিকাভুক্ত করেছে।

করোনার কারণে সিডনি বাসিন্দাদের শহর ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

অস্ট্রেলিয়ায় সিডনি বাসিন্দাদের শহর ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। করোনার তীব্র সংক্রামক ধরন ডেল্টা যেন অন্যান্য এলাকায় ছড়িয়ে পড়তে না পারে সে কারণে অস্ট্রেলিয়ান কর্তৃপক্ষ শনিবার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সিডনির বন্ডি বিচ এলাকায় গত সপ্তাহে করোনার  গুচ্ছ সংক্রমণ শনাক্তের পর এ পর্যন্ত ৩০ জনেরও বেশি লোক করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের প্রধানমন্ত্রী গ্লেডিস বেরেজিকিয়ান নতুন এই পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করেন, যা আগামী সপ্তাহ থেকে কার্যকর হবে। নিষেধাজ্ঞার মধ্যে সিডনির বাইরে অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণ বন্ধ এবং সীমিত পরিসরে সামাজিক মেলামেশার কথা বলা হয়েছে।

সূত্র : আনন্দবাজার, এএফপি।



সাতদিনের সেরা