kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩ আগস্ট ২০২১। ২৩ জিলহজ ১৪৪২

নেপালের প্রেসিডেন্ট বললেন

সুপ্রিম কোর্ট আমার সিদ্ধান্ত বদলাতে পারেন না

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সংবিধানের শর্ত মেনেই নেপালের পার্লামেন্ট বাতিল করেছেন প্রেসিডেন্ট। তাই দেশটির সুপ্রিম কোর্ট প্রেসিডেন্টের নেওয়া এ সিদ্ধান্ত বদলাতে পারেন না বলে মন্তব্য করেছেন নেপালের রাষ্ট্রপ্রধান বিদ্যাদেবী ভাণ্ডারি। এ ছাড়া বিষয়টিকে বিচারিক পর্যালোচনার আওতায়ও নিতে পারেন না বলে সুপ্রিম কোর্টের উদ্দেশে মন্তব্য করেন তিনি।

দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ের বরাতে সুপ্রিম কোর্টকে এক লিখিত বক্তব্যে রাষ্ট্রপতির কার্যালয় শীতল নিবাস জানায়, ‘সংবিধানের ৭৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী রাষ্ট্রপতির নেওয়া কোনো সিদ্ধান্ত পিটিশনের বিষয় হতে পারে না এবং এটা বিচারিক পর্যালোচনার কোনো বিষয়ও হতে পারে না।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘সংবিধানের ৭৬(৫) ধারা অনুযায়ী, এমন কোনো বিধান নেই, যেখানে একজন ব্যক্তি আস্থা ভোট অর্জনে ব্যর্থ বা সফল হলে তাঁকে আইনসভা বা আদালতের পরীক্ষার সম্মুখীন হতে হবে। এসব বিবেচনায় নিয়ে রাষ্ট্রপতি এ (পার্লামেন্ট বিলুপ্ত করার) সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর এ সিদ্ধান্ত শুধু দেশের প্রেসিডেন্টই নিতে পারেন।’

গত ২২ মে দেশটির পার্লামেন্ট বাতিল করা হয়। এ ইস্যুতে ৯ জুন সুপ্রিম কোর্টের পাঠানো কারণ দর্শানো নোটিশের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী কে পি (খড়্গ প্রসাদ) শর্মা অলি, রাষ্ট্রপতি বিদ্যাদেবী ভাণ্ডারি ও স্পিকার অগ্নি সাপকোতা পৃথকভাবে তাঁদের লিখিত বিবৃতি দেন। বিবৃতিতে অলি ও ভাণ্ডারি পার্লামেন্ট বাতিলের পক্ষে সাফাই গাইলেও সাপকোতা পার্লামেন্ট বাতিলের সিদ্ধান্তকে ‘অসাংবিধানিক আচরণ’ আখ্যা দেন।

প্রেসিডেন্ট ভাণ্ডারি এ ক্ষেত্রে রেমুনারেশন্স অ্যান্ড বেনিফিট অব দ্য প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যাক্ট-২০১৭-এর ১৬ নম্বর শর্তের প্রসঙ্গ টেনে জানান, এ সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা তাঁর আছে।

নেপালের পার্লামেন্ট বাতিলের ঘোষণাকে ‘অসাংবিধানিক’ ও ‘অগণতান্ত্রিক’ আখ্যা দিয়ে এর বিরুদ্ধে বিরোধীদলীয় রাজনৈতিক জোটের করা ৩০টি রিট পিটিশনের পরিপ্রেক্ষিতে নেপালের সুপ্রিম কোর্ট এ মামলার শুনানি শুরু করেন। ৯ জুন প্রধানমন্ত্রী ও প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠিয়ে পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে উত্তর পাঠাতে আদেশ দেন সুপ্রিম কোর্ট। আগামী ২৩ জুন থেকে এ মামলার নিয়মিত শুনানি শুরুর কথা। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।



সাতদিনের সেরা