kalerkantho

শুক্রবার । ২২ শ্রাবণ ১৪২৮। ৬ আগস্ট ২০২১। ২৬ জিলহজ ১৪৪২

এরদোয়ান-বাইডেন মুখোমুখি জট খোলার লক্ষণ নেই

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এরদোয়ান-বাইডেন মুখোমুখি জট খোলার লক্ষণ নেই

ন্যাটোর শীর্ষ বৈঠকের ফাঁকে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিপেস তাইয়িপ এরদোয়ান। বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে মুখোমুখি হন তাঁরা।

প্রায় এক ঘণ্টা দুই রাষ্ট্রনায়ক একান্তে কথা বলেছেন। পরে দুজন পৃথক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, সম্পর্ক উন্নয়নে তাঁদের মধ্যে ফলপ্রসূ ও গঠনমূলক আলোচনা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান এমন মন্তব্যও করেছেন, এমন কোনো বিষয় তুরস্ক ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে থাকতে পারে না, যেটার কোনো সমাধান নেই।

কিন্তু সিরিয়ায় কুর্দি মিলিশিয়াদের প্রতি মার্কিন সমর্থন কিংবা তুরস্কে রাশিয়ায় তৈরি ক্ষেপণাস্ত্র বিধ্বংসী ব্যবস্থা মোতায়েনের মতো স্পর্শকাতর যেসব ইস্যুতে দুই দেশের মধ্যে টানাপড়েন চলছে, সেগুলোর ব্যাপারে কোনো সমঝোতার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে কি না, সেসব বিষয়ে সুস্পষ্ট ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি ওই বৈঠকের পর।

সেনাসংখ্যার বিচারে তুরস্ক ন্যাটো জোটের দুই নম্বর সামরিক শক্তি। তুরস্কে ন্যাটো এবং আমেরিকার একাধিক সামরিক ঘাঁটি রয়েছে, যেখানে পারমাণবিক অস্ত্র পর্যন্ত মোতায়েন রয়েছে। সামরিক এই ঘনিষ্ঠতা সত্ত্বেও দুই দেশের সম্পর্কে টানাপড়েন শুরু হয়েছে বেশ কিছুদিন ধরে।

বৈঠকের আগে লন্ডনভিত্তিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান টেনিও তাদের এক পর্যবেক্ষণ রিপোর্টে বলেছিল যে দুই নেতার কেউই এখন অন্যকে চটাতে চাইবেন না এটা ঠিক, কিন্তু বৈঠক থেকে এরদোয়ান গুরুত্বপূর্ণ কিছু সুবিধা অর্জন করবেন, সে সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। কিছু পর্যবেক্ষক অনেকটা একই কথা বলেছেন। তাঁদের যুক্তি, দুই দেশের সম্পর্কে চলমান সংকটের পেছনের কারণগুলো খুবই স্পর্শকাতর। এর পেছনে জাতীয় স্বার্থ, জাতীয় নিরাপত্তা এবং এরদোয়ানের রাজনৈতিক ভবিষ্যতের প্রশ্ন জড়িয়ে রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ভাষ্য, ন্যাটো জোটের কোনো দেশে, বিশেষ করে যেখানে মার্কিন বিমানঘাঁটি এবং মার্কিন পারমাণবিক অস্ত্র মোতায়েন রয়েছে, সেখানে কোনো রুশ কৌশলগত অস্ত্র মোতায়েন করা হলে জোটের নিরাপত্তা হুমকিতে পড়বে। তুরস্ক অবশ্য সব সময় বলে আসছে যে যুক্তরাষ্ট্র প্রতিশ্রুতি মতো প্যাট্রিয়াট ক্ষেপণাস্ত্র বিধ্বংসী ব্যবস্থা বিক্রি না করায় তাদের বাধ্য হয়েই রাশিয়ার কাছে যেতে হয়েছে। সূত্র : বিবিসি।



সাতদিনের সেরা