kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

নেতানিয়াহুর বিদায়ে লাভ দেখছে না ফিলিস্তিন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৫ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নেতানিয়াহুর বিদায়ে লাভ দেখছে না ফিলিস্তিন

টানা এক যুগ পর নতুন প্রধানমন্ত্রী পেল ইসরায়েল। গত রবিবার আস্থা ভোটে হেরে নাফতালি বেনেতের হাতে ক্ষমতা ছাড়েন বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ফিলিস্তিন জানিয়েছে, ইসরায়েলে ক্ষমতার এই পালাবদল তাদের জন্য কোনো তাৎপর্যই বহন করে না। বিশ্লেষকরাও মনে করেন, নতুন সরকারের কারণে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সম্পর্কে কোনো হেরফের হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর উগ্র ডানপন্থী ইয়ামিনা পার্টির নেতা নাফতালি বলেছেন, ‘আমি ইসরায়েলের সব মানুষের মঙ্গলের জন্য কাজ করব।’ শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও আমলাতন্ত্র সংস্কারের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন তিনি।

গত রবিবার রাতের আস্থা ভোটে মাত্র এক ভোটের ব্যবধানে জয় পায় উগ্র ডানপন্থীদের জোট। ভোটাভুটির পর বেনেতের সঙ্গে করমর্দন করে পার্লামেন্ট ত্যাগ করেন নেতানিয়াহু। ক্ষমতা ভাগাভাগির চুক্তি অনুযায়ী ২০২৩ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকবেন ৪৯ বছর বয়সী বেনেত। পরের দুই বছর প্রধানমন্ত্রী থাকবেন মধ্যপন্থী ইয়েশ আতিদ পার্টির নেতা ইয়ার লাপিদ। অন্যদিকে লিকুদ পার্টির নেতার দায়িত্বে থাকবেন নেতানিয়াহু। পার্লামেন্টে বিরোধীদলীয় নেতাও তিনি। আস্থা ভোটে হেরে যাওয়ার পর নেতানিয়াহু বলেন, ‘আমরা আবার ফিরে আসব।’

পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিজের প্রথম ভাষণে বেনেত বলেন, ‘আজ কোনো শোকের দিন নয়। একটি গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় সরকারের পরিবর্তন ঘটেছে; এর বেশি কিছু নয়।’ তিনি আরো বলেন, ‘একজন মানুষকেও যেন ভয় নিয়ে বাঁচতে না হয়, সে জন্য আমরা নিজেদের সর্বোচ্চটাই করব। আজকের রাতটা যারা উদযাপন করতে চায়, তাদের কারণে অন্য কেউ যেন আঘাত না পায়। আমরা একে অন্যের শত্রু নই; সবাই মিলে আমরা একটা সত্তা।’

ফিলিস্তিন মনে করে, ইসরায়েলে ক্ষমতার এই পালাবদলের সঙ্গে তাদের রাজনীতির খুব একটা সম্পর্ক নেই। প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের এক মুখপাত্র বলেন, ‘এটা ইসরায়েলের অভ্যন্তরীণ রাজনীতির বিষয়। আমাদের অবস্থান পরিষ্কার। আমরা ১৯৬৭ সালের সীমান্ত অনুযায়ী একটা ফিলিস্তিন রাষ্ট্র চাই, যার রাজধানী হবে জেরুজালেম।’

গাজা শহর নিয়ন্ত্রণকারী সশস্ত্র সংগঠন হামাসের এক মুখপাত্র বলেছেন, ‘ইসরায়েল একটি দখলদার ও ঔপনিবেশিক সত্তা। নিজেদের অধিকার আদায়ে আমরা তাদের প্রতিহত করব।’

বেনেতকে অভিনন্দন জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি বলেন, ‘আমরা ইসরায়েলের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো জোরালো করতে চাই।’

পাঁচ মেয়াদে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন নেতানিয়াহু। প্রথম মেয়াদে ১৯৯৬ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী ছিলেন তিনি। এরপর ২০০৯ সাল থেকে গত রবিবার পর্যন্ত টানা এই দায়িত্বে ছিলেন ৭১ বছর বয়সী নেতানিয়াহু।

বিশ্লেষকরা বলছেন, বেনেতের পক্ষে নির্বিঘ্নে যেকোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া সহজ হবে না। কারণ ক্ষমতাসীন জোটে বিভিন্ন মতাদর্শের দল রয়েছে। এমনকি প্রথমবারের মতো আরবপন্থী দল ইউনাইটেড আরব লিস্টও সরকারের অংশ হতে যাচ্ছে। অনেকের আশঙ্কা, ফিলিস্তিন ইস্যুতে যেকোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে জোটের শরিক দলগুলোর মধ্যে মতবিরোধ তৈরি হতে পারে। এ ছাড়া জোটের অনেক দলই কট্টর ধর্মীয় বিধি-নিষেধের বিপক্ষে। এ বিষয়টি নিয়েও বিপাকে পড়তে পারে ইয়ামিনা পার্টি। সূত্র : বিবিসি।