kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

জি-সেভেনকে চীনের বার্তা

কয়েক দেশ মিলে বিশ্ব শাসনের দিন শেষ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৪ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কয়েক দেশ মিলে বিশ্ব শাসনের দিন শেষ

কয়েক দেশ মিলে বিশ্ব শাসনের দিন শেষ হয়ে গেছে বলে জি-সেভেন নেতাদের সতর্ক করে দিয়েছে চীন। বেইজিংয়ের ‘বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ’ (বিআরআই) প্রকল্পকে টেক্কা দিতে জি-সেভেন নেতারা যে নতুন প্রকল্পের ঘোষণা দিয়েছেন, মূলত তার সমালোচনা করতে গিয়েই চীন এই প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে।

এদিকে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোকে আরো আর্থিক সহায়তার ব্যাপারে একমত হয়েছেন জি-সেভেন নেতারা। যুক্তরাজ্য, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান ও যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের এই সম্মেলন শুরু হয় গত শুক্রবার। ব্রিটেনে সম্মেলনের শেষ দিন গতকাল জলবায়ু ইস্যুতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দেন নেতারা।

তবে এবারের সম্মেলনে সবচেয়ে আলোচিত ইস্যু ছিল ‘বিল্ড ব্যাক বেটার ওয়ার্ল্ড’ (বিথ্রিডাব্লিউ)। চীনের লাখো কোটি ডলারের ‘বিআরআই’-এর বিকল্প হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এই প্রকল্পের প্রস্তাব তোলেন। তিনি জানান, গরিব দেশগুলোর সড়ক, বন্দরসহ নানা অবকাঠামো নির্মাণে এই প্রকল্পের মাধ্যমে অর্থায়ন করা হবে। যদিও এত বিপুল পরিমাণ অর্থের জোগান কিভাবে আসবে, সে বিষয়ে বিস্তারিত জানাননি বাইডেন।

চীনের ওই প্রকল্পকে বাইডেনের ‘বিথ্রিডাব্লিউ’ কিভাবে টেক্কা দেবে, তা নিয়ে অনেক বিশ্লেষক সংশয় প্রকাশ করেছেন। তাঁরা মনে করেন, বিআরআই প্রকল্পকে টেক্কা দিতে হলে জি-সেভেনকে ঋণে জর্জরিত হতে হবে। ঋণ করা ছাড়া এত বিপুল পরিমাণ অর্থ জোগাড় করা জোটের পক্ষে সম্ভব নয়।

সংশয় প্রকাশ করেছেন খোদ জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেলও। গত শনিবার তিনি বলেন, ‘এ ধরনের প্রকল্পে যে পরিমাণ অর্থ দরকার, জি-সেভেনভুক্ত দেশগুলো তা জোগাড় করার মতো পরিস্থিতিতে নেই।’

বিথ্রিডাব্লিউ প্রকল্প সম্পর্কে লন্ডনে অবস্থিত চীন দূতাবাসের এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, ‘কয়েকটি দেশ মিলে গোটা পৃথিবীর সিদ্ধান্ত নেবে, সেই দিন অনেক আগেই শেষ হয়ে গেছে। একটি দেশ বড় কিংবা ছোট হোক, গরিব কিংবা ধনী হোক, আমরা বরাবরই বিশ্বাস করি যে বিশ্বরাজনীতির যেকোনো সিদ্ধান্ত সব দেশের সঙ্গে আলোচনা করেই নেওয়া উচিত।’ সূত্র : বিবিসি।