kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১০ আষাঢ় ১৪২৮। ২৪ জুন ২০২১। ১২ জিলকদ ১৪৪২

জীবন শঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রের আফগান দোভাষীরা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আয়াজুদিন হিলালের (৪১) মতো বহু আফগান তাদের দেশে মোতায়েন মার্কিন সেনাদের দোভাষীর কাজ করেছেন। তাঁদের নিরাপত্তা নিশ্চিত না করেই আফগানিস্তান ছাড়ছে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটের সেনারা। এবার পরিণতি কী হতে চলেছে, সেটা ফুটে উঠেছে হিলালের জবানিতে, ‘তালেবানরা বলছে, তোমাদের সত্ভাইরা শিগগিরই দেশ ছাড়ছে। এখন আমরা তোমাদের মারব।’ হিলালের মতো অনেকেই যুক্তরাষ্ট্রে পরিবারসহ অভিবাসনের আবেদন জানিয়েছিলেন। কিন্তু মার্কিন দূতাবাস তাঁদের অনেকের আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে।

কাবুলের মোহাম্মদ ওয়ালিজাদা নামের আরেক দোভাষী তালেবানদের হুমকি সম্পর্কে বলেন, ‘তারা নিশ্চিত আমাদের মেরে ফেলবে।’ ওয়ালিজাদার ভিসার আবেদন প্রথমে গ্রহণ করা হলেও পরে তাঁকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়।

২০০৯ সালে আফগানিস্তানে ন্যাটোর সহযোগী বেসামরিক নাগরিক ও দোভাষীদের জন্য বিশেষ অভিবাসী ভিসা (সিভ) চালু হয়। তবে এসব ভিসাপ্রক্রিয়া বেশ জটিল ও দীর্ঘমেয়াদি। করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে তা আরো জটিল হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন গত মাসে জানান, আফগান দোভাষী ও সহায়তাকারীদের রক্ষায় তাঁর দেশ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। সিভ ইস্যুতে বিলম্বের বিষয়টি পর্যালোচনার পাশাপাশি ভিসা প্রত্যাখ্যানের বিরুদ্ধে পুনর্মূল্যায়নের সুযোগ দিতে জো বাইডেন প্রশাসন কার্যকর ব্যবস্থা নেবে বলেও জানান তিনি। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে গত ১০ মে হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র নেড প্রাইস জানান, ভিসা প্রক্রিয়াকরণে কাবুলে মার্কিন দূতাবাসে কর্মীর সংখ্যা সাময়িকভাবে বাড়ানো হয়েছে।

আফগান দোভাষীদের হয়ে কাজ করা নো ওয়ান লেফট বিহাইন্ড শীর্ষক সংগঠনের সহপ্রতিষ্ঠাতা ম্যাট জেলার জানান, ২০১৬ সালের পর কমপক্ষে ৩০০ দোভাষীকে হত্যা করেছে তালেবানরা। তিনি বলেন, ‘তালেবানরা এসব মানুষকে ইসলামের শত্রু বলেই মনে করে।’ সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।



সাতদিনের সেরা