kalerkantho

রবিবার । ৬ আষাঢ় ১৪২৮। ২০ জুন ২০২১। ৮ জিলকদ ১৪৪২

শিনচিয়াং ইস্যুতে জাতিসংঘের সভা

‘উদ্দেশ্যমূলক’ সভায় যোগ না দিতে চীনের আহ্বান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চীনের মানবাধিকার ইস্যু নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও জার্মানি জাতিসংঘের যে সভার আয়োজন করেছে, তাতে যোগ না দিতে সংস্থার সদস্য দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে চীন।

চীনের শিনচিয়াং প্রদেশের সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিমদের কিভাবে সহযোগিতা করা যায়, তা নিয়ে আলোচনার উদ্দেশ্যে আগামী বুধবার জাতিসংঘের সভা হওয়ার কথা। ওই ভার্চুয়াল আলোচনায় ভাষণ দেবেন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও জার্মানির জাতিসংঘ দূতরা। ওই সভায় যোগ দেবেন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের নির্বাহী পরিচালক কেন রথ ও অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের মহাসচিব অ্যাগনেস ক্যালামার্ড।

চীনের অভিযোগ, জাতিসংঘের এই সভা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। তাই গত বৃহস্পতিবার জাতিসংঘে নিযুক্ত চীনা দূত সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে চিঠি দিয়ে অনুরোধ জানিয়েছেন, তারা যেন ওই আলোচনাসভায় যোগ না দেয়। এ অনুষ্ঠানের আয়োজক হিসেবে আছে ইউরোপের বিভিন্ন দেশসহ অস্ট্রেলিয়া ও কানাডা। চীন বলছে, এ দেশগুলো মানবাধিকার ইস্যুকে রাজনৈতিক অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে।

উইঘুর নিয়ে চলমান ইস্যুতে চীনের ওপর আরো চাপ বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন গত সপ্তাহে বলেন, চীন আগের চেয়ে আরো আগ্রাসী আচরণ করছে। শক্তি ও প্রভাব বিস্তার করতে গিয়ে তারা বিশ্বকে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছে।

সম্প্রতি বিবিসির এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে বলা হয়, চীনের শিনচিয়াং অঞ্চলের জনমিতি বদলে দিতে চায় দেশটির সরকার। এই লক্ষ্যে বেইজিং বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এ প্রকল্প শিনচিয়াংয়ে উইঘুর সম্প্রদায়ের জনসংখ্যা আরো কমিয়ে দিচ্ছে।

তবে শিনচিয়াংয়ে সরকারের এসব চেষ্টার অভিযোগ অস্বীকার করছে বেইজিং। তাদের ভাষ্য, লোকজনের আয় বৃদ্ধির পাশাপাশি দীর্ঘস্থায়ী বেকারত্ব ও দারিদ্র্য দূরীকরণের লক্ষ্যে শিনচিয়াং থেকে লোকজনকে অন্যত্র স্থানান্তর করা হচ্ছে।

সূত্র : রয়টার্স।