kalerkantho

শনিবার । ৫ আষাঢ় ১৪২৮। ১৯ জুন ২০২১। ৭ জিলকদ ১৪৪২

ফিলিস্তিনি উচ্ছেদ ইস্যুতে জাতিসংঘ

যুদ্ধাপরাধ গণ্য হতে পারে ইসরায়েলের তৎপরতা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পূর্ব জেরুজালেম থেকে ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ না করতে ইসরায়েলকে আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। সংস্থাটি বলেছে, এ ধরনের তৎপরতা চালালে তা যুদ্ধাপরাধ হিসেবে গণ্য হতে পারে। ইসরায়েলের নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে ফিলিস্তিনি হতাহত ও গ্রেপ্তারের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল শুক্রবার এই আহ্বান জানাল জাতিসংঘ।

ইসরায়েল অধিকৃত জেরুজালেমের ওল্ড সিটির কাছে শেখ জারাহ এলাকায় জমির মালিকানা নিয়ে কয়েকটি ফিলিস্তিনি ও ইহুদি পরিবারের মধ্যে বিরোধ রয়েছে। সেখানে ফিলিস্তিনি চারটি পরিবার বসবাস করলেও গত সোমবার জমির মালিকানা ইহুদি পরিবারগুলোকে দিয়ে দেন ইসরায়েলের একটি আদালত। এরপর ওই চারটি পরিবারকে ইসরায়েলের নিরাপত্তা বাহিনী উচ্ছেদের হুমকি দিলে নতুন করে উত্তেজনা দেখা দেয়। বুধবার রাতে সেখানে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত হয় ২২ ফিলিস্তিনি। গ্রেপ্তার করা হয় ১৫ জনকে।

এ অবস্থায় গতকাল জেনেভায় জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক দপ্তরের মুখপাত্র রুপার্ট কোলভিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘সেখান থেকে ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ বন্ধ করতে আমরা ইসরায়েলকে আহ্বান জানাচ্ছি। পূর্ব জেরুজালেম এখনো ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডের অংশ, যেখানে আন্তর্জাতিক মানবিক আইন বলবৎ আছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘অধিকৃত এলাকায় বেসামরিক লোকজনকে স্থানান্তর করা আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থী এবং যুদ্ধাপরাধ হিসেবেও গণ্য হতে পারে।’

ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলের জুলুম-নির্যাতনের নিন্দা জানিয়েছেন ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি। গতকাল ‘জেরুজালেম দিবস’ (কুদস ডে) উপলক্ষে টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে এই নিন্দা জানান তিনি। খামেনি বলেন, ‘ইসরায়েল কোনো দেশ নয়, এটি ফিলিস্তিন ও মুসলিম বিশ্বের বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা সন্ত্রাসীদের একটি ঘাঁটি। শিগগিরই এই ঘাঁটির পতন ঘটবে। স্বৈরাচারী এই শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করা সবার দায়িত্ব।’

এদিকে পশ্চিম তীরে দুই বন্দুকধারীকে হত্যা করেছে ইসরায়েলের পুলিশ। এ ছাড়া আরেক বন্দুকধারী গুরুতর আহত হয়েছে। পুলিশের ভাষ্য, এই তিনজন তাদের সালেম ঘাঁটি লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। পুলিশ পাল্টা গুলি চালালে দুই হামলাকারীর মৃত্যু হয়। ঘটনাস্থল থেকে ছুরি ও আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করার কথাও জানিয়েছে পুলিশ।

সূত্র : এএফপি।



সাতদিনের সেরা