kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৮ মে ২০২১। ৫ শাওয়াল ১৪৪

ভারতে রেকর্ড শনাক্ত, ‘স্পুৎনিক ভি’ অনুমোদন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভারতে রেকর্ড শনাক্ত, ‘স্পুৎনিক  ভি’ অনুমোদন

নভেল করোনাভাইরাস শনাক্তে নতুন রেকর্ড তৈরি হয়েছে ভারতে। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সেখানে এক লাখ ৬৮ হাজার মানুষের শরীরে প্রাণঘাতী ভাইরাসটির উপস্থিতি ধরা পড়েছে। এর মধ্য দিয়ে সংক্রমণের নিরিখে ব্রাজিলকে টপকে বিশ্বে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠল প্রতিবেশী দেশটি। সংক্রমণ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভারতে টিকার সংকট দেখা দেওয়ায় উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বাড়ছে। দেশটিতে রাশিয়ার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা ‘স্পুৎনিক  ভি’ অনুমোদন পেয়েছে। এ নিয়ে তিনটি ভ্যাকসিন ভারতে ব্যবহারের জন্য অনুমোদন পেল।

দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গতকাল সোমবার ভারতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে এক লাখ ৬৮ হাজার ৯১২ জন। মহামারির মধ্যে এর আগে এক দিনে এত রোগী শনাক্ত হয়নি। সব মিলিয়ে বিশ্বের দ্বিতীয় জনবহুল দেশটিতে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হলো এক কোটি ৩৫ লাখ ২৭ হাজার ৭১৭ জন।

সংক্রমণের নিরিখে দীর্ঘদিন বিশ্বে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। সেখানকার পরিস্থিতির তেমন উন্নতি না হলেও ভারতে সংক্রমণে যে উল্লম্ফন ঘটেছে, তাতে করে প্রতিবেশী দেশটি ব্রাজিলের স্থান দখল করেছে। বর্তমানে ব্রাজিলে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক কোটি ৩৪ লাখ ৮২ হাজার ৫৪৩ জনে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতে সংক্রমণে উল্লম্ফন হওয়ার পাশপাশি অন্তত ছয়টি রাজ্যের তরফে টিকাসংকটের কথা বলা হচ্ছে। তবে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার দাবি করে যাচ্ছে, টিকার কোনো ঘাটতি নেই, যথেষ্ট মজুদ আছে।

ভারতের নতুন সংক্রমণের অর্ধেকেরও বেশি ধরা পড়ছে পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য মহারাষ্ট্রে। সেখানে টিকাদান কর্মসূচি একেবারে থমকে গেছে। রাজ্য সরকার বলছে, তাদের হাতে আছে আর মাত্র ১৫ লাখের মতো টিকার ডোজ, যেটি দিয়ে বড়জোর তিন দিন চলবে। রাজ্যের রাজধানী মুম্বাই, কোলহাপুর, সাংলি ও সাতারা জেলার টিকাদানকেন্দ্রগুলো বন্ধ হয়ে গেছে।

মহরাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ টোপে বলেছেন, ‘যদি তিন দিনের মধ্যে নতুন টিকা এসে না পৌঁছে, আমাদের পুরো টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ করে দিতে হবে।’

ভারতের অনুমোদন পেল ‘স্পুৎনিক  ভি’ : রাশিয়ার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা ‘স্পুৎনিক  ভি’ ভারতে অনুমোদন পেয়েছে। এ নিয়ে তিনটি ভ্যাকসিন ভারতে ব্যবহারের জন্য অনুমোদন পেল। এত দিন ভারতে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি কোভিশিল্ড ও ভারত বায়োটেকের কো-ভ্যাকসিন অনুমোদিত ছিল।

হায়দরাবাদের ফার্মাসিউটিক্যাল কম্পানি ডক্টর রেড্ডিস ল্যাবরেটরি রাশিয়ান এই টিকা ভারতে ব্যবহারের অনুমোদনের আবেদন করে। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের ড্রাগ কন্ট্রোলার গতকাল এই টিকার ছাড়পত্র দেয়।  সূত্র : দ্য হিন্দু, এএফপি, বিবিসি, আনন্দবাজার।