kalerkantho

শুক্রবার। ৩১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ মে ২০২১। ০২ শাওয়াল ১৪৪২

আলোচনার মধ্যেই ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করছে ইরান

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পরমাণু চুক্তি পুরোপুরি কার্যকরে ইতিবাচক অগ্রগতি আনতে অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় চলমান আলোচনার মধ্যেই গতকাল শনিবার ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের কাজ আবারও শুরু করেছে ইরান। ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি নাতানজ ইউরেনিয়াম প্লান্টে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে গতকাল এ খবর প্রকাশ করা হয়।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৮ সালে ইরানের পরমাণু চক্তি থেকে তাঁর দেশকে সরিয়ে নেন এবং ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করেন। এরপর ইরানের পক্ষ থেকে পরমাণু কর্মসূচি শুরু করার ঘোষণা দেওয়া হয়। এর ধারাবাহিকতায় গতকাল ইরান ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ কর্মসূচি আরো এগিয়ে নিল।

নাতানজ প্লান্টের এক প্রকৌশলী জানান, প্রেসিডেন্ট রুহানির নির্দেশ পাওয়ার পরই তাঁরা ইউরেনিয়াম হেক্সাফ্লুরাইড গ্যাস নিয়ে তাঁদের কাজ শুরু করেছেন।

ইরানের বহুল আলোচিত পরমাণু কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে জাতিসংঘের স্থায়ী পাঁচ সদস্য রাষ্ট্র ও জার্মানি ২০১৫ সালে জয়েন্ট কম্প্রিহেনসিভ প্ল্যান অব অ্যাকশন (জেসিপিওএ) শীর্ষক চুক্তিতে পৌঁছায়। চুক্তি থেকে বেরিয়ে ইরানের ওপর আবারও যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ আরোপের সিদ্ধান্ত মানতে পারেননি চুক্তির বাকি অংশীদাররা। চুক্তিভুক্ত অন্য দেশগুলো চাইছিল যুক্তরাষ্ট্র ‘পি৫+১’ বলে খ্যাত এই চুক্তিটি মেনে চলুক। ইরানও বারবার যুক্তরাষ্ট্রকে চুক্তিতে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়েছে। জো বাইডেনের নেতৃত্বে বর্তমান মার্কিন প্রশাসন এই চুক্তিতে ফিরে আসার প্রতিশ্রুতি দেয়। কিন্তু এরপর বাইডেন প্রশাসনের এ নিয়ে কোনো ইতিবাচক পদক্ষেপ দেখা যায়নি।

এদিকে অচলাবস্থার মুখে পড়া চুক্তিতে যুক্তরাষ্ট্রকে ফিরিয়ে আনতে এবং মার্কিন অবরোধ তুলে নিতে চুক্তিভুক্ত প্রতিনিধিদের সঙ্গে ভিয়েনা আলোচনায় এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এ আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি অংশও নেয়নি। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) এ ক্ষেত্রে মধ্যস্ততা করছে। ইরানের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র যতক্ষণ পর্যন্ত সব অবরোধ তুলে না নেবে, ততক্ষণ তারা ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের কাজ চালিয়ে যাবে। সূত্র : এএফপি।