kalerkantho

শুক্রবার। ৩১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ মে ২০২১। ০২ শাওয়াল ১৪৪২

জর্দানের যুবরাজের ভিডিও বার্তা

আমাকে গৃহবন্দি করা হয়েছে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৫ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আমাকে গৃহবন্দি করা হয়েছে

জর্দানের সাবেক যুবরাজ প্রিন্স হামজা বিন হুসেইন এক ভিডিও বার্তায় জানিয়েছেন, তাঁকে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে এবং এটা দেশের বর্তমান নেতাদের সমালোচকদের ওপর এক দমনাভিযানের অংশ।

প্রিন্স হামজা হচ্ছেন জর্দানের বাদশাহ আব্দুল্লাহর সত্ভাই। সম্প্রতি জর্দানে উচ্চ পর্যায়ের বেশ কিছু লোককে গ্রেপ্তার করা হয়, যা একটি কথিত অভ্যুত্থানচেষ্টার সঙ্গে সম্পর্কিত বলে বলা হচ্ছে।

প্রিন্স হামজার আইনজীবীর মাধ্যমে সংবাদমাধ্যম বিবিসির কাছে পাঠানো এক ভিডিওতে তিনি তাঁর দেশের নেতাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, অদক্ষতা ও হয়রানির অভিযোগ আনেন।

জর্দানের সামরিক বাহিনী এর আগে প্রিন্স হামজাকে গৃহবন্দি করার কথা অস্বীকার করেছিল। তবে তারা বলেছে, জর্দানের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা ক্ষুণ্ন হতে পারে, এমন কিছু কার্যকলাপ বন্ধ করার জন্য প্রিন্স হামজাকে আদেশ দেওয়া হয়েছে।

সম্প্রতি প্রিন্স হামজা কিছু উপজাতীয় নেতার সঙ্গে দেখা করেছিলেন, যাঁদের মধ্য থেকে তিনি কিছু সমর্থন পেয়েছেন বলে জানা গেছে। প্রিন্স অবশ্য কোনো রকম অন্যায় করার কথা অস্বীকার করে বলেছেন, তিনি কোনো ষড়যন্ত্রের অংশ ছিলেন না।

এর মধ্যে মিসর ও সৌদি আরবের মতো আরববিশ্বের আঞ্চলিক শক্তিগুলো বাদশাহ আব্দুল্লাহর প্রতি সমর্থন প্রকাশ করেছে। ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জর্দানকে মিত্র হিসেবে নেওয়া যুক্তরাষ্ট্রও বাদশাহ আব্দুল্লাহকে একজন গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হিসেবে বর্ণনা করে তাঁর প্রতি তাদের পূর্ণ সমর্থন প্রকাশ করেছে।

জর্দান দেশটির প্রাকৃতিক সম্পদ খুবই কম এবং তাদের অর্থনীতি কভিড-১৯ মহামারির কারণে গুরুতরভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ ছাড়া প্রতিবেশী সিরিয়া থেকে বিপুল পরিমাণ শরণার্থীও জর্দানে এসে আশ্রয় নিয়েছে। শনিবার রেকর্ড করা ভিডিওটিতে প্রিন্স হামজা বলেন, জর্দানের সেনাপ্রধান তাঁকে জানিয়েছেন যে তিনি বাড়ি থেকে বেরোতে পারবেন না এবং লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন না; কারণ তিনি উপস্থিত ছিলেন এমন কিছু সভায় সরকার ও বাদশাহর সমালোচনা করা হয়েছে। সূত্র : বিবিসি।