kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

‘রক্তপাতেও পিছপা নয় জান্তা’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘রক্তপাতেও পিছপা নয় জান্তা’

ছবি : ইন্টারনেট

মিয়ানমারে সেনা ও পুলিশের সম্মিলিত কঠোর দমন-পীড়ন উপেক্ষা করে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভ চলছে। দেশটির বিভিন্ন শহরের রাজপথে গণতন্ত্রকামী জনতার প্রতিবাদের পাশাপাশি বিভিন্ন পেশাজীবীরাও অসহযোগ আন্দোলনে শামিল হচ্ছেন। দেশটির বৃহত্তম শহর ইয়াঙ্গুনে গতকাল বুধবার ধর্মঘট করেন রেলওয়ের অন্তত ৮০০ শ্রমিক।

গত ১ ফেব্রুয়ারি অং সান সু চির দল ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে সামরিক বাহিনী দেশটির নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর থেকে বিক্ষোভ চলছে। পাশাপাশি অসহযোগ আন্দোলন করছেন বিভিন্ন সরকারি খাতের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এতে ব্যাংকসহ সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে।

এদিকে গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে জান্তার ক্রমবর্ধমান কঠোর অবস্থানের নতুন তথ্য সামনে এসেছে। ভারতে আশ্রয় নেওয়া দেশটির সদ্য পদত্যাগী একজন পুলিশ সদস্যের ভাষ্য, বিক্ষোভ দমাতে রক্তপাত ঘটাতেও পিছপা নয় জান্তা সরকার।

সু চির মুক্তি দাবি করায় যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

গতকাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা ফুটেজে মা হিয়া গন রেলস্টেশনের স্টাফ কম্পাউন্ডের কাছে নিরাপত্তা বাহিনীর উপস্থিতি দেখা গেছে। ধর্মঘটরত একজন শ্রমিক টেলিফোনে রয়টার্সকে বলেছেন, শিগগিরই দমনাভিযান শুরু হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তাঁরা।

ইয়াঙ্গুনের সান চায়ুং এলাকায়ও পুলিশের ব্যাপক উপস্থিতি ছিল এদিন। উত্ত ওকালাপা থেকে ১০০ জনের মতো বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তারের তথ্য জানা গেছে। সরাসরি ভিডিও স্ট্রিমিংয়ে দেখা যায়, পুলিশের ছোড়া কাঁদানে গ্যাসে বিক্ষোভকারীরা কাশছে। তারা চোখ-মুখ ধুয়ে স্বস্তি পাওয়ার চেষ্টা করছে। সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে ৬০ জনেরও বেশি বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে। এক হাজার ৯০০ জনেরও বেশি গ্রেপ্তার হয়েছে। সূত্র : এএফপি, রয়টার্স, বিবিসি।