kalerkantho

শনিবার । ২৭ চৈত্র ১৪২৭। ১০ এপ্রিল ২০২১। ২৬ শাবান ১৪৪২

নারী দিবস মা দিবসও

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নারী দিবস মা দিবসও

পুরুষতান্ত্রিক বিশ্বে রাজনীতিতে নারীর অংশগ্রহণ থেকে শুরু করে তাদের ভোটাধিকারসহ অনেক কিছুই সামনে আসে আন্তর্জাতিক নারী দিবসে। তবে দিবসটির উৎপত্তি ও উদযাপন বিষয়ে বেশ কিছু মজার তথ্য রয়েছে, যা অনেকেরই অজানা। এমন কিছু তথ্য পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো—

অনেকেই মনে করেন, নারী দিবসের উৎপত্তি হয়তো সমাজতান্ত্রিক কোনো দেশ থেকে হয়েছে। অবাক করা বিষয় হলেও সত্যি যে দিবসটির উৎপত্তি যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে একসময় একটি শক্তিশালী সমাজতান্ত্রিক দল ছিল, যারা ১৯৯০ সালে নারী দিবসের প্রচলন শুরু করে।

১৯১০ সালে জার্মান সমাজতান্ত্রিক নেতা ক্লারা জেটকিন ইউরোপে এই দিবসটির ধারণা নিয়ে আসেন। পরে মার্চের ১৯ তারিখ নারীর অধিকার আদায়ের দাবিতে অস্ট্রিয়া, ডেনমার্ক, জার্মানি ও সুইজারল্যান্ডে নারী দিবসের মিছিলের আয়োজন করা হয়।

৮ মার্চ নারী দিবস হিসেবে প্রথম পালিত হয় ১৯১৪ সালে জার্মানির বার্লিনে। এ ছাড়া সোভিয়েত ইউনিয়নের নেতা ভ্লাদিমির লেনিন ৮ মার্চ নারীদের জন্য উদযাপনের সিদ্ধান্ত দেওয়ায় এবং একসময় দিনটি একই সঙ্গে নারী দিবস ও সমাজতন্ত্র উদযাপনের জন্য নির্ধারিত হওয়ায় অনেকেই এটিকে সমাজতান্ত্রিক দিবস হিসেবে দেখতেন, কিন্তু সোভিয়েত ইউনিয়নের বাইরে দিবসটি মূলত নারী অধিকার আদায়ের দিন হিসেবেই পালিত হতো।

দিবসটি বর্তমান রূপ লাভ করার পেছনে অবদান জাতিসংঘের। ১৯৭৭ সালে ৮ মার্চকে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে ঘোষণা করে সংস্থাটি। বেশ কিছু দেশে এদিন সরকারি ছুটি থাকে। এসব দেশের মধ্যে রাশিয়া, উগান্ডা, মঙ্গোলিয়া, জর্জিয়া, লাওস, কম্বোডিয়া, আর্মেনিয়া, বেলারুশ ও ইউক্রেন রয়েছে। এ ছাড়া সার্বিয়া, আলবেনিয়া, ম্যাসোডনিয়া ও উজবেকিস্তানে ৮ মার্চ নারী দিবসের পাশাপাশি মা দিবস হিসেবেও পালিত হয়।

এসব দেশে মা দিবস যে সব সময় খুব ঘটা করে পালিত হয়, তেমনটা নয়। সারা জীবন বিনা পারিশ্রমিকে খেটে যাওয়া মায়েরা যদি আলবেনিয়ার বাসিন্দা হন, তাহলে হয়তো এদিন পেতে পারেন ফুলেল শুভেচ্ছা। দেশটা যদি হয় সার্বিয়া, তাহলে হয়তো সন্তানরা মায়ের উদ্দেশে দিতে পারেন বিশেষ কোনো বক্তব্য। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য