kalerkantho

শুক্রবার । ৩ বৈশাখ ১৪২৮। ১৬ এপ্রিল ২০২১। ৩ রমজান ১৪৪২

হংকংয়ে বিতর্কিত আইনে ৪৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হংকংয়ে বিতর্কিত নিরাপত্তা আইনের আওতায় গতকাল রবিবার ৪৭ জনের বিরুদ্ধে সরকারবিরোধী অপরাধের অভিযোগ এনেছে পুলিশ। আইনটি কার্যকর হওয়ার পর এর আওতায় এই প্রথম এত মানুষের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হলো।

বেইজিংয়ের চাপিয়ে দেওয়া নিরাপত্তা আইনের বিরুদ্ধে অব্যাহত আন্দোলনের মধ্যে গত মাসে সরকারের টানা অভিযানে ৫৫ জনকে আটক করা হয়। গতকাল তাঁদের মধ্যে ৪৭ জনের বিরুদ্ধে ‘সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র’-এর অভিযোগ করা হয়। আজ সোমবার সকালে অভিযুক্তদের আদালতে হাজির করার কথা রয়েছে। তাঁদের দোষ প্রমাণিত হলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডও হতে পারে। অভিযুক্তদের মধ্যে জেমস তো ও ক্লডিয়া মো তোর মতো প্রবীণ সাবেক গণতন্ত্রপন্থী আইন প্রণেতারাও রয়েছেন।

১৯৯৭ সালের জুনে হংকংয়ের দায়িত্ব চীনের কাছে হস্তান্তর করে ব্রিটেন। এর পর থেকে হংকংয়ে কখনো নিরবচ্ছিন্ন শান্তি দেখা যায়নি। আধাস্বায়ত্তশাসিত হংকংয়ে ২০১৯ সালে অস্থিতিশীলতা তুঙ্গে ওঠে। বিতর্কিত প্রত্যর্পণ আইন ঘিরে শুরু হওয়া সরকারবিরোধী আন্দোলন অবিলম্বে গণতান্ত্রিক সংস্কারের দাবি আদায়ের আন্দোলনে রূপ নেয়। গণতন্ত্রপন্থীদের সঙ্গে আলোচনায় বসার পরিবর্তে নিপীড়নমূলক আইন প্রণয়ন করে বেইজিং। জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষার নামে গত জুনে হংকংয়ে কার্যকর করা হয় বিতর্কিত নিরাপত্তা আইন। ওই আইন কার্যকর করার পর একদিকে চলতে থাকে গণতন্ত্রপন্থীদের বিক্ষোভ, অন্যদিকে সরকারপক্ষের ধরপাকড়। এর ধারাবাহিকতায় গত মাসে ৫৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁদের ৪৭ জনের বিরুদ্ধে গতকাল সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনা হয়। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের অপরাধ, গত গ্রীষ্মে তাঁরা আইনসভার আংশিক নির্বাচনে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে প্রার্থী বাছাইয়ের অনানুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু করেছিলেন।

গ্রেপ্তার ৪৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনার পর গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক জিমি শাম পুলিশ স্টেশনের বাইরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘স্বাধীনতা স্বর্গ থেকে আসা কোনো উপহার নয়। অনেকের কঠিন ইচ্ছাশক্তির জোরেই তা অর্জিত হয়।’

১৯৯৭ সালে হংকংয়ের দায়িত্ব হস্তান্তরের সময় চীন-ব্রিটেনের মধ্যে চুক্তি হয়েছিল। তাতে বলা হয়, অন্তত ৫০ বছর হংকংয়ে ‘এক দেশ দুই নীতি’ চালু থাকবে এবং এ সময়ের মধ্যে চীনের মূল ভূখণ্ডের কোনো আইন হংকংয়ে চাপিয়ে দেওয়া যাবে না। কিন্তু চুক্তির মাত্র ২৩ বছরের মাথায় নিজেদের তৈরি আইন হংকংয়ে কার্যকর করেছে চীন। এ ঘটনার পর ব্রিটেন চীনের বিরুদ্ধে দ্বিপক্ষীয় চুক্তিভঙ্গে অভিযোগ করে। পশ্চিমা দেশগুলোর অভিযোগ, বিতর্কিত নিরাপত্তা আইন কার্যকরের মধ্য দিয়ে হংকংবাসীর কণ্ঠরোধ করছে বেইজিং। এসব অভিযোগের ব্যাপারে চীনের ভ্রুক্ষেপ নেই। তারা বিষয়টাকে অভ্যন্তরীণ অ্যাখ্যা দিয়ে এতে কাউকে ‘নাক না গলানোর’ আহ্বান জানিয়ে আসছে। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য