kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৩ রজব ১৪৪২

চার বছরে ট্রাম্পের ৩০৫৭৩ মিথ্যা!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চার বছরে ট্রাম্পের ৩০৫৭৩ মিথ্যা!

হোয়াইট হাউস ছেড়ে বেরিয়ে গেলেও সিনেটে তাঁকে ইমপিচমেন্টের শুনানি এখনো বাকি। এর মধ্যেই ফের অস্বস্তি বাড়ল যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে মিথ্যাবাদী প্রেসিডেন্টের তকমা বসে গেল তাঁর নামের পাশে। ২০১৭ সালের ২০ জানুয়ারি থেকে ২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি সকালে হোয়াইট হাউস ছেড়ে যাওয়া পর্যন্ত তিনি প্রকাশ্যে ৩০ হাজার ৫৭৩ বার মিথ্যা দাবি করেছেন বলে জানা গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় সংবাদপত্র ‘ওয়াশিংটন পোস্ট’ এই পরিসংখ্যান তুলে ধরেছে। তারা জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার আগেও বিচক্ষণ হিসেবে তেমন সুখ্যাতি ছিল না ট্রাম্পের। নির্বাচনী প্রচারেও বিভিন্ন অযৌক্তিক দাবি করতে দেখা যায় তাঁকে। তাই তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পর থেকে প্রথম ১০০ দিন তাঁর প্রতিটি মন্তব্যের রেকর্ড রাখতে শুরু করে তারা। পরে পাঠকদের আরজি মেনে নিয়মিত রেকর্ড রাখা শুরু হয়।

সত্যাসত্য যাচাই করে ট্রাম্পের মন্তব্যের মধ্য থেকে সঠিক ও ভুয়া তথ্য আলাদা করার জন্য বিশেষ ‘ফ্যাক্ট চেক টিম’ও তৈরি করা হয়। গত বুধবার হোয়াইট হাউস থেকে ট্রাম্প বিদায় নেওয়ার পর সেই হিসাব মেলানো শুরু হয়। তাতেই ট্রাম্পের সমস্ত ভুয়া দাবির যোগফল ৩০ হাজার ৫৭৩-এ গিয়ে ঠেকেছে।

ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পর প্রথম বছরে প্রকাশ্যে দিনে অন্তত চারটি করে মিথ্যা বলেছেন। দ্বিতীয় বছরে তা বেড়ে হয় দৈনিক ১৬টি। তৃতীয় বছরে তা বেড়ে দাঁড়ায় দিনে ২২টি এবং চতুর্থ বছরে তা বেড়ে হয় দিনে ৩৯টি! হোয়াইট হাউসে প্রথম ২৭ মাসে ট্রাম্প ১০ হাজার মিথ্যা বলার রেকর্ড পার করে ফেলেন বলে জানা গেছে। পরবর্তী ১৪ মাসে মিথ্যার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ২০ হাজার। এর পরের পাঁচ মাসে তাঁর বলা মিথ্যার সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়িয়ে যায়।

তবে জনসভা ও নিজের টুইটার হ্যান্ডলেই ট্রাম্প সবচেয়ে বেশি মিথ্যা দাবি করেছেন বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট। তারা জানিয়েছে, অভিবাসীদের দল সীমান্ত পেরিয়ে আমেরিকায় ঢুকতে ধেয়ে আসছে বলে দাবি করে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসকেও বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেন তিনি। ২০১৯ সালে ফোনে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কথা হয়েছে এবং তিনি জো বাইডেনের বিরুদ্ধে তদন্তের কথা জানিয়েছেন বলেও দাবি করেন ট্রাম্প। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা