kalerkantho

বুধবার । ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭। ৩ মার্চ ২০২১। ১৮ রজব ১৪৪২

যুক্তরাষ্ট্র-তালেবান চুক্তি খতিয়ে দেখবেন বাইডেন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যুক্তরাষ্ট্র-তালেবান চুক্তি খতিয়ে দেখবেন বাইডেন

নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী মার্কিন পররাষ্ট্রনীতির ‘সংস্কারকাজ’ শুরু করে দিয়েছেন নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এরই মধ্যে তাঁর প্রশাসন জানিয়ে দিয়েছে, আফগান তালেবানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যে চুক্তি রয়েছে, তা পুনর্বিবেচনা করা হবে। বিশেষ করে তালেবানের পক্ষ থেকে চুক্তিটি ঠিকঠাক মানা হচ্ছে কি না, তার চুলচেরা বিশ্লেষণ করতে চায় বাইডেন প্রশাসন।

এদিকে বিদেশি নেতা হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্টের প্রথম ফোনটা পেয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। গত শুক্রবার বেশ কয়েকটি ইস্যু নিয়ে তাঁর সঙ্গে কথা বলেন বাইডেন।

গত বছর কাতারে তালেবানের সঙ্গে একটি চুক্তি করে ওয়াশিংটন। ওই চুক্তি অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্র পর্যায়ক্রমে আফগানিস্তান থেকে তাদের সেনা প্রত্যাহার করে নেবে। বিনিময়ে তালেবান যোদ্ধারা আফগানিস্তানে কোনো হামলা কিংবা সহিংসতা ঘটাবে না। এ ছাড়া ওই চুক্তির পর তালেবানের সঙ্গে আফগান সরকারের শান্তি আলোচনাও শুরু হয়। কিন্তু চুক্তির পরও আফগানিস্তানে সহিংসতার পরিমাণ বেড়ে গেছে। এ অবস্থায় চুক্তিটি পুনর্বিবেচনার কথা জানাল বাইডেন প্রশাসন।

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তা উপদেষ্টা হিসেবে মনোনয়ন পেয়েছেন জেইক সুলিভান। গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র এমিলি হরনে এক বিবৃতিতে বলেন, চুক্তির বিষয়ে আফগানিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হামাদুল্লাহ মোহিবের সঙ্গে সুলিভান কথা বলেছেন। তিনি হামাদুল্লাহকে পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন যে বাইডেন প্রশাসন চুক্তিটি নতুন করে খতিয়ে দেখতে চায়। বিবৃতিতে বলা হয়, তালেবান চুক্তির শর্তগুলো ঠিকঠাক মানছে কি না, মূলত সে বিষয়টিতে বাইডেন প্রশাসন গুরুত্ব দেবে। যেমন বিভিন্ন সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সঙ্গে তালেবানের এখনো সম্পর্ক রয়েছে কি না, তারা হামলা চালানো বন্ধ করেছে কি না, কিংবা আফগান সরকারের সঙ্গে তালেবানের শান্তি আলোচনা অব্যাহত আছে কি না—এসব বিষয় বাইডেন প্রশাসন নিশ্চিত করতে চায়। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, তালেবানের সঙ্গে আফগান সরকারের শান্তি আলোচনায় সেখানকার নারী ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের যেসব অধিকারের কথা বলা হয়েছে, তা বাস্তবায়ন করতে বাইডেন প্রশাসন সর্বোচ্চ সহযোগিতা দেবে।

এদিকে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে গত শুক্রবার আধাঘণ্টা কথা বলেছেন বাইডেন। ওই ফোনালাপে দুই নেতার মধ্যে করোনা মহামারি, জলবায়ু পরিবর্তনসহ বিভিন্ন ইস্যুতে কথা হয়। দুই দেশের পক্ষ থেকে পৃথক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এদিকে একই দিন মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদোরের সঙ্গে কথা বলেছেন বাইডেন। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা