kalerkantho

সোমবার । ২৩ ফাল্গুন ১৪২৭। ৮ মার্চ ২০২১। ২৩ রজব ১৪৪২

ভারতে কমলার স্বজনদের উচ্ছ্বাস

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২২ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কমলা হ্যারিস যখন গত বুধবার মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিচ্ছিলেন, ভারতের তামিলনাড়ুর থুলাসেন্দ্রাপুরাম গ্রামে তাঁর নানাবাড়ির স্বজনরা তখন আগ্রহ নিয়ে বসেছিলেন টেলিভিশনের সামনে। করোনা মহামারির কারণে বাস্তবে যুক্তরাষ্ট্রে হাজির না হতে পারলেও টিভির পর্দায় প্রথম নারী এবং প্রথম দক্ষিণ এশীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে কমলাকে শপথ নিতে দেখে গর্বিত হয়েছেন তাঁরা।

স্বজনদের প্রত্যাশা, পরবর্তী নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে জয়লাভ করে আরেকটি নতুন ইতিহাস তৈরি করবেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা। গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তাঁর মামা গোপালান বালাচন্দ্রন বলেন, ‘কমলা সব কিছুই নিজ যোগ্যতায় করেছে। কেউ যদি তার পথনির্দেশক হিসেবে কাজ করে থাকে, তিনি কমলার মা। আশা করি সে এতটাই ভালোভাবে কাজ করবে যে চার বছর পর স্বয়ংক্রিয়ভাবেই ডেমোক্রেটিক মনোনয়ন পাবে এবং প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ও লাভ করবে।’ গোপালান জানান, তাঁর মেয়ে সারদা বালাচন্দ্রন কমলার অভিষেক অনুষ্ঠানে সশরীরে উপস্থিত ছিলেন। করোনার টিকা নেওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে ভাগ্নির সঙ্গে সাক্ষাৎ করার ইচ্ছা রয়েছে তাঁর নিজেরও।

এদিকে শপথ নেওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগে ৫৬ বছর বয়সী কমলা টুইটারে এক ভিডিও পোস্ট করে তাঁর জীবনে অনুপ্রেরণা হয়ে আসা নারীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এই নারীদের মধ্যে তাঁর মা শ্যামলা গোপালানও রয়েছেন। ভারতে জন্ম নেওয়া শ্যামলা একজন ব্রেস্ট ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ছিলেন, যিনি পরবর্তী সময়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান। সেখানকারই ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে জন্ম হয় কমলার। পড়াশোনা, বেড়ে ওঠা—সব কিছুই যুক্তরাষ্ট্রে হলেও বেশ কয়েকবার কমলাকে নিয়ে ভারতে বেড়াতে গিয়েছিলেন শ্যামলা। ফলে দেশটির কোটি মানুষের সঙ্গে কমলার একটি আত্মিক বন্ধন রয়েছে বলে মনে করে ভারতীয়রা। এরই প্রতিফলন ঘটে তিনি ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার সময়। থুলাসেন্দ্রাপুরাম গ্রামবাসী আতশবাজির উৎসব করে শুভেচ্ছা জানায় কমলাকে।

এ ছাড়া ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও কমলা হ্যারিসকে শুভেচ্ছাবার্তা দিয়েছেন।

সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা