kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭। ২ মার্চ ২০২১। ১৭ রজব ১৪৪২

কাবুলে দুই নারী বিচারককে গুলি করে হত্যা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আফগানিস্তানের কাবুলে বন্দুকধারীদের হামলায় সুপ্রিম কোর্টের দুই নারী বিচারক নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। গতকাল রবিবার ভোরে এই ঘটনা ঘটে। আফগান সরকার-তালেবান শান্তি আলোচনার মধ্যেই দেশটিতে গত কয়েক মাস ধরে চলমান একের পর এক হত্যাকাণ্ডের ঘটনার মধ্যে সর্বশেষ সংযোজন এটি।

সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র আহমাদ ফাহিম কায়িম গণমাধ্যমকে জানান, ওই দুই বিচারক গতকাল ভোরে কোর্টের গাড়িতে চড়ে অফিসে যাচ্ছিলেন। এ সময় অজ্ঞাতপরিচয় বন্দুকধারীদের হামলায় দুজনই নিহত হন। আহত হন তাঁদের বহনকারী গাড়ির চালক। কাবুল পুলিশ এই হত্যাকাণ্ডের সত্যতা নিশ্চিত করেছে। এর আগে সর্বশেষ ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে আফগানিস্তানের সুপ্রিম কোর্টের ওপর আঘাত হানা হয়েছিল। এক আত্মঘাতী বোমা হামলায় তখন অন্তত ২০ জন নিহত এবং ৪১ জন আহত হন। বর্তমানে সুপ্রিম কোর্টে দুই শর বেশি নারী বিচারক কর্মরত আছেন।

এদিকে এখন পর্যন্ত কেউ গতকালের এই ঘটনার দায় স্বীকার না করলেও আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির দাবি, তালেবানই এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। প্রেসিডেনশিয়াল প্যালেসের ইস্যু করা এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘সরকার তালেবানের উদ্দেশে ফের বলতে চায় যে সহিংসতা, সন্ত্রাস, নিষ্ঠুরতা ও অপরাধ শুধুই দেশের যুদ্ধকে দীর্ঘায়িত করবে। প্রকৃত লক্ষ্য (শান্তি) অর্জন করতে তাদের উচিত স্থায়ী যুদ্ধবিরতির দিকে যাওয়া।’ এই হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন কাবুলে নিযুক্ত ব্রিটিশ দূত অ্যালিসন ব্লেকও। তিনি বলেছেন, ‘আমরা এটিসহ বেসামরিক লোবজনের ওপর চালানো সব হামলার নিন্দা জানাই।’

শান্তি আলোচনার মধ্যেই কয়েক মাস ধরে আফগানিস্তানে একের পর এক রাজনৈতিক নেতা, সাংবাদিক, অধিকারকর্মী, চিকিৎসক ও আইনজীবীসহ বিভিন্ন পেশার উচ্চপদে আসীনদের বেছে বেছে হত্যা করা হচ্ছে। এসব ঘটনায় আফগান সরকার তালেবানকে দোষারোপ করলেও তালেবান শুরু থেকেই এসব ঘটনার দায় অস্বীকার করে আসছে। কিন্তু অবস্থা এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে চলতি মাসের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রও প্রথমবারের মতো এসব ঘটনায় সরাসরি তালেবানকে দোষারোপ করেছে। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা