kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

নির্বাচনী মামলা

বড় হচ্ছে ট্রাম্পের পরাজয়ের পাহাড়

ট্রাম্প শিবির ৪৬টি মামলায় হেরেছে। মাত্র একটি মামলায় তাদের জয় হয়েছে, যদিও তাতে নির্বাচনী ফলে কোনো প্রভাব পড়ছে না

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৬ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বড় হচ্ছে ট্রাম্পের পরাজয়ের পাহাড়

জয়ের পেছনে যত ছুটছেন, ততই যেন আরো বেশি করে পিছিয়ে পড়ছেন নির্বাচনে পরাজিত ডোনাল্ড ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর থেকে তিনি কারচুপিসহ নানা অভিযোগে যেসব মামলা করেছেন, সেগুলোর বেশির ভাগই তাঁর বিপক্ষে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের (এপি) হিসাবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচার শিবির ও মিত্ররা গত ৩ নভেম্বরের নির্বাচনের পর থেকে প্রায় অর্ধশত মামলা করেছেন। এর মধ্যে ৩০টির বেশি মামলা বাতিল হয়ে গেছে অথবা আদালত পর্যন্ত গড়ায়নি। আর ডেমোক্রেসি ডকেট শীর্ষক অ্যাডভোকেসি গ্রুপের হিসাবে ট্রাম্প শিবির ৪৬টি মামলায় হেরেছে। মাত্র একটি মামলায় তাদের জয় হয়েছে, যদিও তাতে নির্বাচনী ফলে কোনো প্রভাব পড়ছে না। পেনসিলভানিয়ায় করা ওই মামলায় ডাকভোট প্রদানকারীদের পরিচয় নিশ্চিত করার প্রমাণ হাজির করার সময় বাড়ানোর যে আবেদন করা হয়েছিল, আদালত তাতে সম্মতি দিয়েছেন। একের পর এক মামলায় পরাজয়ের পাশাপাশি ক্যালিফোর্নিয়ার ৫৫টি ইলেকটোরাল ভোট আনুষ্ঠানিকভাবে ট্রাম্পের হাতছাড়া হয়ে গেছে। এ অঙ্গরাজ্যের ইলেকটোরাল কলেজের ভোটে ডেমোক্র্যাট রাজনীতিক জো বাইডেনকে আনুষ্ঠানিকভাবে জয়ী ঘোষণা করা হয়। ফলে আনুষ্ঠানিকভাবে বাইডেনের ইলেকটোরাল ভোটের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭৯টিতে (পূর্বানুমান নয়, অনুষ্ঠানিক ঘোষণা)। জয়ের জন্য তাঁর দরকার ছিল ২৭০টি ইলেকটোরাল ভোট।

সব দিক থেকে পরাজয় জেঁকে বসার পরও ট্রাম্প শিবির মামলা করায় ক্ষান্ত দেয়নি। ট্রাম্প বরং গত বুধবার ফেসবুকে ৪৬ মিনিটের এক ভিডিও পোস্টে দাবি করেছেন, নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটদের কারচুপির অভিযোগ সত্য এবং এর প্রমাণও আছে। অথচ তাঁর অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বার স্বীকার করেছেন, এখন পর্যন্ত নির্বাচনের ফল উল্টে দেওয়ার মতো কারচুপির কোনো প্রমাণ পায়নি মার্কিন বিচার বিভাগ। সূত্র : গার্ডিয়ান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা