kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৭ মাঘ ১৪২৭। ২১ জানুয়ারি ২০২১। ৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মৃত্যুদণ্ড যেভাবে ট্রাম্পের ‘রাজনৈতিক হাতিয়ার’

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গদি ছাড়ার আগে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মৃত্যুদণ্ডকে ‘রাজনৈতিক হাতিয়ার’ হিসেবে ব্যবহার করে যাচ্ছেন বলে মনে করেন আইনজীবী ব্রায়ান স্টিভেনসন। গতকাল বৃহস্পতিবার এএফপিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই আফ্রিকান-আমেরিকান অ্যাটর্নি বলেন, গত জুলাইয়ে মৃত্যুদণ্ড পুনর্বহালের পর ট্রাম্প প্রশাসন যেভাবে এর ব্যবহার করছে, তা ন্যূনতম মাত্রায় হলেও ‘রাজনৈতিক হাতিয়ার’ হিসেবে প্রতীয়মান হয়।

৬১ বছর বয়সী স্টিভেনসন এদিনই ‘রাইট লিভলিহুড অ্যাওয়ার্ড’ পান। সুইডিশ ফাউন্ডেশনের এই পুরস্কার ‘বিকল্প নোবেল’ হিসেবে পরিচিত। ভুলভাবে সাজা পাওয়া কয়েদিদের আইনি সহায়তা প্রদানকারী অলাভজনক সংস্থা ইকোয়াল জাস্টিস ইনিশিয়েটিভের প্রতিষ্ঠাতাও স্টিভেনসন। তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা প্রতি ৯ জনের মধ্যে একজনকে পরবর্তী সময়ে নির্দোষ হিসেবে পাওয়া গেছে।’ এ অবস্থায় কেন্দ্রীয়ভাবে মৃত্যুদণ্ড পুনর্বহালে হতাশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘বিপুলসংখ্যক কালো মানুষকে ভুলভাবে অভিযুক্ত করা, গ্রেপ্তার করা এবং সাজা দেওয়া হয়েছে।’ এর সপক্ষে অনেক তথ্য-প্রমাণ তুলে ধরেন স্টিভেনসন। তাঁর দাবি, যুক্তরাষ্ট্রের বিচারব্যবস্থা ও বিচারকরাও বর্ণবাদমূলক পক্ষপাতের বাইরে নন। গত জুলাইয়ে ট্রাম্প প্রশাসন কেন্দ্রীয়ভাবে মৃত্যুদণ্ড ফের বহাল করেছে। এর আগে ১৭ বছর এটি বন্ধ ছিল। এরই মধ্যে আটজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে এবং পাঁচজন তালিকায় রয়েছেন। এর মধ্যে আগামী ১৫ জানুয়ারি একজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের তারিখ ঠিক হয়ে আছে। এর মাত্র পাঁচ দিন পরই দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

গত জুলাইয়ের আগের ৪৫ বছরে যুক্তরাষ্ট্রে কেন্দ্রীয়ভাবে মাত্র তিনজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে জানিয়ে স্টিভেনসন বলেন, ‘এটা খুবই দুঃখজনক। আমি খুশি হব যদি কেন্দ্রীয়ভাবে মৃত্যুদণ্ডের বিধান বাতিল করা হয়।’ সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা