kalerkantho

শনিবার । ৯ মাঘ ১৪২৭। ২৩ জানুয়ারি ২০২১। ৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

স্বরূপে ফিরেছে যুক্তরাষ্ট্র : বাইডেন

জিএসএর নথিপত্রে সই করেও ট্রাম্প পরে টুইটে লিখেছেন, আমি কিছুই স্বীকার করিনি!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৬ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্বরূপে ফিরেছে যুক্তরাষ্ট্র : বাইডেন

একদিকে যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আরো বেশি করে দ্যুতি ছড়াচ্ছেন, অন্যদিকে বিদায়ি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্রমেই পিছু হটছেন।

মার্কিন প্রশাসনের নতুন মুখগুলোকে সঙ্গে নিয়ে গত মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমের সামনে হাজির হয়ে জো বাইডেন বলেছেন, স্বরূপ ফিরে পাওয়া আমেরিকা বিশ্বকে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত। একই দিন ট্রাম্প হবু প্রেসিডেন্টের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়াসংক্রান্ত নথিতে স্বাক্ষর করেছেন।

নিজ অঙ্গরাজ্য ডেলাওয়ারের উইলমিংটনে বাইডেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী, অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তাবিষয়ক মন্ত্রী, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা, গোয়েন্দাপ্রধান, জাতিসংঘ দূত ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক দূত হিসেবে মনোনীতদের পাশে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন। নারী-পুরুষের ছয়জনের এ দল সম্পর্কে বাইডেন বলেন, ‘এ জনসেবকরা আমেরিকার বৈশ্বিক নেতৃত্ব ও নৈতিক নেতৃত্ব পুনরুদ্ধার করবেন।’ তাঁদের সম্পর্কে এ ডেমোক্র্যাট নেতা আরো বলেন, ‘এ দলটা যে বাস্তবতাকে প্রতিফলিত করবে, সেটা হলো আমেরিকা স্বরূপে ফিরেছে, বিশ্বকে নেতৃত্ব দিতে প্রস্তুত, সেই নেতৃত্ব থেকে পিছু হটবে না।’

ট্রাম্পকে বিদায় জানিয়ে আগামী ২০ জানুয়ারি প্রেসিডেন্সি গ্রহণের পর ‘যুক্তরাষ্ট্র আবার নেতৃত্বের আসনে বসবে, আমাদের শত্রুদের মোকাবেলায় প্রস্তুত হবে এবং মিত্রদের দূরে ঠেলে দেবে না’—এমন মন্তব্য করেন সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইডেন।

নতুন প্রশাসনের জন্য মনোনীত ব্যক্তিদের সংবাদমাধ্যমে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি বাইডেন গত মঙ্গলবার সাক্ষাৎকারও দেন। নির্বাচনে জয়ের পর টেলিভিশন মাধ্যমকে দেওয়া এটাই তাঁর প্রথম সাক্ষাৎকার। এনবিসিকে দেওয়া সেই সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘নিজের বৈশ্বিক ভূমিকা ফের জোরদার করতে চলেছে আমেরিকা এবং হতে চলেছে জোটের সংগঠক।’

সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইডেন এটাও বলেছেন, তাঁর নেতৃত্বাধীন প্রশাসনকে কোনোভাবেই ওবামার তৃতীয় মেয়াদের প্রশাসন মনে করার সুযোগ নেই। কারণ ‘আমরা সম্পূর্ণ ভিন্ন এক বিশ্বের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে’, এমনটা বলেন ৭৮ বছর বয়সী বাইডেন। বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে তাঁর অভিমত, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দৃশ্যপট বদলে ফেলেছেন। আমেরিকা ফার্স্ট নীতির মানে দাঁড়িয়েছে একাকী আমেরিকা।’

হোয়াইট হাউসের এক অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অবশ্য বলেছেন, ‘আমার মতে, আমেরিকা ফার্স্ট থেকে দূরে সরে যাওয়া উচিত হবে না।’ ওই অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার আগে তিনি প্রেসিডেন্সি হস্তান্তরসংক্রান্ত নথিপত্রে সই করেন। প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়া দেখভালকারী জেনারেল সার্ভিসেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (জিএসএ) কাগজপত্রে গত মঙ্গলবার সই করে ট্রাম্প কার্যত আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনে পরাজয় স্বীকার করে নিলেন, এমন মন্তব্য করছে সংবাদমাধ্যমগুলো। তবে জিএসএর নথিপত্রে সই করেও ট্রাম্প পরে টুইটে লিখেছেন, ‘আমি কিছুই স্বীকার করিনি!’

প্রথম ১০০ দিন : এনবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বাইডেন জানিয়েছেন নিজের প্রেসিডেন্সির প্রথম ১০০ দিনে অগ্রাধিকার পাওয়া কাজের তালিকা। নিঃসন্দেহে সেই তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবেলার প্রস্তুতি। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘হোয়াইট হাউসের কভিড টিমের সঙ্গে আমরা এরই মধ্যে বৈঠকের পরিকল্পনা করছি। তারা আন্তরিক।’

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সংকট নিয়ে বিশেষজ্ঞদের উদ্বেগকে ট্রাম্প ‘ধাপ্পাবাজি’ বললেও বাইডেন ওই সংকট নিয়ে সত্যি উদ্বিগ্ন। তাই প্রথম ১০০ দিনের কার্যতালিকায় তিনি পরিবেশ ইস্যুও রেখেছেন। অবৈধ অভিবাসীদের বৈধতা দেওয়াও তাঁর কাছে সমান গুরুত্ব পাবে।

বাইডেনকে শির অভিনন্দন : চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম এ কথা জানিয়েছে। এক টেলিগ্রামে শি বলেন, বিশ্বশান্তি ও উন্নয়নের স্বার্থে দুই দেশেরই ‘সংঘাত নয়, পারস্পরিক শ্রদ্ধা ও সহযোগিতার’ নীতিতে অটল থাকা উচিত।

সূত্র : এএফপি, বিবিসি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা