kalerkantho

শুক্রবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৭ নভেম্বর ২০২০। ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

তৃতীয় ঢেউয়ের শঙ্কা ইউরোপে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তৃতীয় ঢেউয়ের শঙ্কা ইউরোপে

ইউরোপে করোনা মহামারির তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। আর সেটি শুরু হতে পারে আগামী বছরের শুরুতেই। সংস্থাটির কভিড-১৯ বিষয়ক বিশেষ দূত ডেভিড নাবারো গত শনিবার এই আশঙ্কার কথা জানান।

সুইজারল্যান্ডের গণমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নাবারো বলেন, ‘প্রথম ঢেউয়ের পর করোনা নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো গড়ে তুলতে ইউরোপের দেশগুলো গ্রীষ্মে কয়েক মাস সময় পেয়েছিল। কিন্তু সেই সময় তারা কাজে লাগাতে পারেনি। এ কারণে দ্বিতীয় ঢেউ আঘাত হানে। এখন যদি একই ভুল আবার করে, তাহলে তৃতীয় ঢেউ আঘাত হানবে। আর সেটি হতে পারে আগামী বছরের একেবারে শুরুর দিকেই।

ইউরোপে সংক্রমণের হার কিছু দিন কম ছিল। এরপর সেটি আবার বাড়তে শুরু করে। গত শনিবার জার্মানি ও ফ্রান্সে ৩৩ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। সুইজারল্যান্ড, অস্ট্রিয়া ও তুরস্কসহ আরো অনেক দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে।

এদিকে কভিড-১৯ চিকিৎসায় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অ্যান্টিবডির বিশেষ ককটেল দেওয়া হয়েছিল, সেটিকে সর্বসাধারণের ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ঔষধ প্রশাসন। এই ওষুধটি একদিন পরীক্ষামূলক পর্যায়ে ছিল। ওষুধটি বানিয়েছে মার্কিন প্রতিষ্ঠান ‘রিজিনেরন’। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা লিওনার্দ শেইফার বলেছেন, ‘কভিড-১৯ মোকাবেলায় ঔষধ প্রশাসনের এই সিদ্ধান্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে ।’

এদিকে পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের হিসাব অনুযায়ী, বিশ্বের ২১৩টি দেশ ও অঞ্চলে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় পাঁচ কোটি ৮৭ লাখে। এর মধ্যে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছে পাঁচ লাখ ৮১ হাজার ১৫০ জন। মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৩ লাখ ৮৮ হাজার ৭১০ জনে। এর মধ্যে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে আট হাজার ৯২২ জন। সেরে ওঠার সংখ্যাও কম নয়; সাড়ে চার কোটির বেশি। চিকিৎসাধীন আছে এক কোটি ৬৬ লাখ মানুষ। এদের মধ্যে মৃদু উপসর্গ রয়েছে এক কোটি ৬৫ লাখ মানুষের (৯৯ শতাংশ)। বাকিদের (১ শতাংশ) অবস্থা আশঙ্কাজনক। এএফপি, টাইমস অব ইন্ডিয়া।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা