kalerkantho

রবিবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৯ নভেম্বর ২০২০। ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ২০২০

‘স্লিপি জো’ জেগেছেন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘স্লিপি জো’ জেগেছেন

ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী জো বাইডেনের যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়ার স্বপ্ন বহু যুগের। স্বপ্ন খান খান হয়ে ভেঙে যেতেও দেখেছেন একাধিকবার। সেই স্বপ্ন পূরণের সম্ভাবনার সবচেয়ে কাছাকাছি এখন অবস্থান করছেন তিনি। ৪৭ বছরের রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের গুরুত্ব ও মহত্ব তিনি বোঝেন। এই কারণেই হয়তো একেবারে শেষ সময়ে এসে গা-ঝাড়া দিয়ে উঠেছেন। করোনার ছোঁয়াচ বাঁচাতে শুরু থেকেই দূরত্ব রাখতে চাইলেও এখন নির্বাচন ছাড়া আর কোনো ভাবনাকে প্রশ্রয় দিতে চাইছেন না বাইডেন। গত শুক্রবার আইওয়া, উইসকনসিন ও মিনেসোটায় প্রচার চালিয়েছেন। গতকাল শনিবার তাঁর সাবেক ‘বস’ বারাক ওবামাকে নিয়ে মিশিগানে অন্তত দুটি জনসভায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল তাঁর।

প্রতিদ্বন্দ্বী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এত দিন ধরে যে বয়স, স্বাস্থ্য আর কচ্ছপ গতিতে প্রচার চালানোর জন্য বাইডেনকে ‘স্লিপি জো’ বলে উপহাস করছিলেন তা হয়তো এবার আর ধোপে টিকবে না। থেমে নেই অবশ্য প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পও। আগামী তিন দিনে ১৩টি সমাবেশের পরিকল্পনা রয়েছে তাঁর। গত শুক্রবারই করেছেন তিনটি সভা। গতকাল গেছেন পেনসিলভানিয়ায়। ২০১৬ সালের নির্বাচনে এই রাজ্যে হিলারি ক্লিনটনকে হারিয়েছিলেন তিনি।

দুই প্রার্থী এখন শেষ মুহূর্তের প্রচারে ব্যস্ত। মধ্য-পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্যগুলো চষে ফেলছেন তাঁরা। কেউ কাউকে সুযোগ দিতে চান না। বাইডেন গত শুক্রবার দিন শুরু করেন আইওয়া দিয়ে। গতবার এ রাজ্য থেকে সুখকর অভিজ্ঞতা হয়নি ডেমোক্রেটিক পার্টির। ১০ পয়েন্টের ব্যবধানে জয়ী হন ট্রাম্প। বাইডেনের পরের রাজ্যটি ছিল মিনেসোটা। চার বছর আগে সেখানেও ট্রাম্পের কাছে স্বল্প ব্যবধানে পরাস্ত হন হিলারি। এরপর যান উইসকনসিনে। এসব রাজ্যে বাইডেনের বার্তা ছিল স্পষ্ট। ছোট ছোট ড্রাইভ ইন সভা করেছেন। আইওয়াতে গিয়ে ট্রাম্পের সমর্থকদের প্রতিরোধের মুখে পড়েন তিনি। গাড়ির হর্ন বাজিয়ে বাইডেনের জনসভার বারোটা বাজাতে উদ্যত হওয়া এসব ট্রাম্পের সমর্থক সম্পর্কে বাইডেন বলেন, ‘এই লোকগুলো ঠিক ভদ্র নয়; এরা ট্রাম্পের মতোই। এভাবে গাড়ির হর্ন বাজানো রাজনৈতিকভাবে শুদ্ধাচার নয়।’ তিনি আরো বলেন, ‘ডোনাল্ড ট্রাম্প সাদা পতাকা তুলে ভাইরাসের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন। কিন্তু আমেরিকান জনগণ তা করবে না। তারা কাপুরুষ নয়। আমিও নই।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমরা এমন একজন প্রেসিডেন্ট চাই, যিনি আমাদের ঐক্যবদ্ধ করবেন, বিভক্ত নয়।’ বাইডেন বলেন, ‘আমি কোনো কিছুই অবধারিত বলে মেনে নেই না।’

নির্বাচনের মাত্র কয়েক দিন হাতে রেখে এরই মধ্যে সাড়ে আট কোটিরও বেশি ভোটার আগাম ভোট দিয়ে ফেলেছেন। এর মধ্যে অন্তত সাড়ে পাঁচ কোটি ভোটার ডাকযোগে ভোট দিয়েছেন। এর মধ্যে রেকর্ড ভোট পড়েছে টেক্সাসে। ৯০ লাখ ভোটার আগাম ভোট দিয়েছেন। ২০১৬ সালের নির্বাচনে এ অঙ্গরাজ্য থেকে মোট ভোট দিয়েছিলেন ৭০ লাখ। এবারের ভোট সে সংখ্যাকেও ছাড়িয়ে গেছে।

নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী বাইডেন সব ধরনের মতামত জরিপে সুস্পষ্টভাবে এগিয়ে রয়েছেন। এমনকি রিপাবলিকান সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজের জরিপেও তিনি এগিয়ে। 

এই ব্যবধান কমাতেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ট্রাম্প। দোদুল্যমান হিসেবে পরিচিত রাজ্যগুলোতে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বাড়ছে। গত শুক্রবার পর্যন্ত দেশে ৯০ লাখের বেশি মানুষ করোনা আক্রান্ত হলো। মৃতের সংখ্যা দুই লাখ ৩১ হাজার ছাড়িয়েছে। ঠিক এই বিষয়টিকেই পুঁজি করে প্রচার চালাচ্ছেন বাইডেন। আর একেই বরাবর এড়িয়ে যাচ্ছেন ট্রাম্প। গত শুক্রবার তিনি মিশিগান, উইসকনসিন ও মিনেসোটায় সমাবেশ করেছেন। প্রতিটি সমাবেশেই দাবি করেছেন, তাঁর প্রশাসন করোনাকে পরাজিত করেছে। সূত্র : বিবিসি, এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা