kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ কার্তিক ১৪২৭। ২০ অক্টোবর ২০২০। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ২০২০

ভোট থেকে কৃষ্ণাঙ্গদের দূরে রাখার ফন্দি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভোট থেকে কৃষ্ণাঙ্গদের দূরে রাখার ফন্দি

যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে গত শনিবার নারীরা ট্রাম্প-বাইডেন জুটির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেন। ছবি : এএফপি

জো বাইডেনের গত বৃহস্পতিবারের সভায় এক তরুণ কৃষ্ণাঙ্গ ভোটার সেডরিক হামফ্রে প্রশ্ন করেন, ‘যেসব কৃষ্ণাঙ্গ ভোটার মনে করেন, আপনাকে ভোট দেওয়ার মানে হলো সে ব্যবস্থায় অংশগ্রহণ করা, যে ব্যবস্থা সব সময় তাদের সুরক্ষা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। তাদের আপনার কী বলার আছে?’

উত্তরে বাইডেন ওই তরুণকে ভোট দেওয়ার গুরুত্ব বোঝানোর চেষ্টা করেন। ভোট দিয়ে ডেমোক্র্যাটদের জেতালে কৃষ্ণাঙ্গরা সঞ্চয় করার সুযোগ পাবে এবং তাদের শিক্ষা সুবিধা বাড়বে, সেটাও উল্লেখ করেন সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট।

কৃষ্ণাঙ্গদের ভোট নিশ্চিত করার জন্য বাইডেন তাত্ক্ষণিক ওই তরুণকে নানাভাবে বোঝানোর চেষ্টা করেছেন। কিন্তু ওই প্রশ্নের জন্ম তাত্ক্ষণিকভাবে হয়নি। বর্ণবাদে বিভক্ত মার্কিন সমাজে কৃষ্ণাঙ্গদের বঞ্চনার ইতিহাস দীর্ঘ। আধুনিক যুক্তরাষ্ট্রেও সেই বিভক্তি সমাজ ও শাসনব্যবস্থার পরতে পরতে রয়ে গেছে। ক্ষমতার পালাবদলে তাতে বড় রকমের কোনো হেরফের ঘটছে না। এ অবস্থায় কৃষ্ণাঙ্গদের ভোটের গুরুত্বকে খোদ কৃষ্ণাঙ্গরাই প্রশ্নবিদ্ধ করবে, সেটা খুব একটা অমূলক নয়।

কৃষ্ণাঙ্গদের এমন মুষড়ে পড়া মনোভাব আরো দুর্বল করে দিতে আগামী ৩ নভেম্বরের নির্বাচন ঘিরে চলছে নানা চেষ্টা। সেসব চেষ্টার লক্ষ্য একটাই—তারা যেন ভোট দিতে না যায়। আরো আশ্চর্যের বিষয় হলো, ভোটকেন্দ্র থেকে কৃষ্ণাঙ্গ ভোটারদের দূরে রাখার চেষ্টা যাঁরা করেন, তাঁদের একটি অংশ হচ্ছে খোদ তাঁদেরই সম্প্রদায়ের অগ্রসর জনগোষ্ঠী। ফার্স্ট ড্রাফট শীর্ষক গবেষণা ও সাংবাদিক প্রশিক্ষণ সংস্থার ঊর্ধ্বতন অনুসন্ধানী গবেষক জ্যাকুলিন মেসন মনে করেন, অগ্রসর কৃষ্ণাঙ্গ জনগোষ্ঠীর অনেকে বাইডেনকে ভোট দেওয়ার কোনো অর্থই খুঁজে পাচ্ছেন না। তাঁদের এ মনোভাব গোটা কৃষ্ণাঙ্গ সম্প্রদায়ের ওপর প্রভাব ফেলে। সব কৃষ্ণাঙ্গ ভোটার ধরেই নিচ্ছেন, তাঁদের ভোট দেওয়া অর্থহীন। বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ প্ল্যাটফর্মে অগ্রসর কৃষ্ণাঙ্গদের নেতিবাচক মনোভাব ভোটদানে নিরুৎসাহকরণে বিরাট ভূমিকা রাখছে।

কৃষ্ণাঙ্গদের এমন মনোভাবের ফায়দা লোটার অপেক্ষায় থাকা বিরোধী গোষ্ঠী নির্বাচন ঘিরে আরো সক্রিয় হয়েছে। এই যেমন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এমন হাজারো ভুয়া অ্যাকাউন্ট আছে, যেগুলো খোলা হয়েছে কৃষ্ণাঙ্গ পরিচয়ে এবং ওই অ্যাকাউন্টধারীরা নিজেদের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থক হিসেবে তুলে ধরছেন। কৃষ্ণাঙ্গ ভোটাররা যখন এসব ভুয়া কৃষ্ণাঙ্গ অ্যাকউন্টধারীদের ট্রাম্পকে সমর্থন দিতে দেখেন, তখন তাঁরা ভোট দেওয়ার ব্যাপারে আরো হতাশায় ডুবে যান। সূত্র: এনবিসি নিউজ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা